টয় স্টোরি ২ (বাংলা: খেলনার গল্প ২) পিক্সার অ্যানিমেশন স্টুডিওজ প্রযোজিত ও ওয়াল্ট ডিজনি পিকচার্স পরিবেশিত ১৯৯৯ সালের মার্কিন অ্যানিমেশন কমেডি-রোমাঞ্চকর চলচ্চিত্র। এটি টয় স্টোরির চলচ্চিত্রের সিক্যুয়াল। ছবিটি পরিচালনা করেছেন জন ল্যাসেটার এবং সহ-পরিচালক ছিলেন লি উঙ্করিখঅ্যাশ ব্রেনন। ছবিটির গল্প লিখছেন জন ল্যাসেটার, পিট ডক্টের, অ্যান্ড্রু স্ট্যান্টনঅ্যাশ ব্রেনন এবং চিত্রনাট্য লিখেছেন অ্যান্ড্রু স্ট্যান্টন, রিটা সিও, ডগ চ্যাম্বারলিন, ক্রিস ওয়েব। শেরিফ উডিকে একজন খেলনা সংগ্রহকারক নিয়ে যায় এবং সে জাদুঘরে অমরত্ব লাভের ফাঁদে পা দিতে চাইলে বাজ লাইটইয়ারসহ অন্যান্যরা তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করে।[৩] আগের চলচ্চিত্রের মত শেরিফ উডি চরিত্রে কণ্ঠ দিয়েছেন টম হ্যাঙ্কস এবং বাজ লাইটইয়ারের চরিত্রে টিম অ্যালেন

টয় স্টোরি ২
Toy Story 2 logo.svg
পরিচালকজন ল্যাসেটার
প্রযোজক
  • হেলেন প্লটকিন
  • কারেন রবার্ট জ্যাকসন
চিত্রনাট্যকার
কাহিনীকার
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারর‍্যান্ডি নিউম্যান
চিত্রগ্রাহকশ্যারন ক্যালাহান
সম্পাদক
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকবুয়েনা ভিস্তা পিকচার্স ডিস্ট্রিবিউশন
মুক্তি
দৈর্ঘ্য৯৫ মিনিট[১]
দেশযুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$৯০ মিলিয়ন[২]
আয়$৪৯৭.৪ মিলিয়ন[২]

টয় স্টোরি ২ ১৯৯৯ সালের ২৪ নভেম্বর মুক্তি পেয়ে সারা বিশ্বে $৪৯৭.৪ মিলিয়ন আয় করে।[২] ১০ বছর পর এর সিক্যুয়াল টয় স্টোরি ৩ (২০১০) মুক্তি পায় এবং বাণিজ্যিকভাবে সফলতার পাশাপাশি সমালোচকের প্রশংসা অর্জন করে। ২০১৯ সালে ছবিটির তৃতীয় সিক্যুয়াল টয় স্টোরি ৪ মুক্তির সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।[৪]

কাহিনী সংক্ষেপসম্পাদনা

শেরিফ উডি অ্যান্ডির সাথে একটি কাউবয় ক্যাম্পে যাওয়ার প্রস্তুতি নেয়। কিন্তু তার আগে অ্যান্ডি উডির ডান হাত ভেঙ্গে ফেলে এবং তাকে স্টোর রুমের শেলফে রেখে দেয়। সেখানে তার হুইজি ও পেঙ্গুইনের সাথে দেখা হয়, যাদের মাসখানেক যাবত সেই শেলফে রেখে দেওয়া হয়েছে। অ্যান্ডির মা হুইজিকে পুরাতন জিনিসপত্র বিক্রির বাক্সে রেখে দিলে উডি সেখান থেকে পালায় কিনুত লোভী খেলনা সংগ্রহকারী হাতে পড়ে, যে তাকে তার অ্যাপার্টমেন্টে নিয়ে যায়। বাজ লাইটইয়ার ও অ্যান্ডির বাকি খেলনারা তাকে একটি টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে দেখতে পায় এবং জানতে পারে সে হল অ্যাল্‌স টয় বার্ন স্টোরের মালিক অ্যাল ম্যাকহুইগিন। বাজ, হ্যাম, মিঃ পটেটো হেডরেক্স উডিকে উদ্ধারের জন্য প্রস্তুত হয়।

অ্যালের অ্যাপার্টমেন্টে উডি জানতে পারে আসলে সে ১৯৫০-এর দশকের টেলিভিশন শো উডিজ রাউন্ডআপ-এর একটি চরিত্র এবং এখন একটি মূল্যবান সংগ্রহযোগ্য খেলনা। তাকে অ্যাল জাপানের টোকিওর খেলনা জাদুঘরে বিক্রি করে দেওয়া হবে। শোয়ের অন্য চরিত্রসমূহ-জেসি, উডির ঘোড়া বুল্‌স আইস্টিঙ্কি পিট জাদুঘরে যেতে উদগ্রীব, কিন্তু উডি অ্যান্ডির কাছে ফিরে যেতে চায় এবং অ্যান্ডির খেলনা হয়েই থাকতে চায়। জেসি তাকে বুঝায় সে এমিলি নামের একটি মেয়ের খেলনা ছিল এবং সে বড় হয়ে গেলে জেসিকে স্টোর রুমে ফেলে দেয়। তার অবস্থায়ও তেমনই হবে।

ইতিমধ্যে বাজ বাকিদের নিয়ে অ্যাল্‌স টয় বার্নে পৌঁছায়। সেখানে ইউটিলিটি বেল্ট বাজ নামে এক খেলনার সাথে দেখা হয় যে বাজের মত নিজেকে আসল স্পেস রেঞ্জার ভাবে এবং তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসে। অবশেষে তাদের সহযোগিতায় উডি ফিরে আসতে সক্ষম হয়। অ্যান্ডি ক্যাম্প থেকে ফিরে আসে অন্য খেলনাদের সাথে জেসি, বুল্‌স আই, ও অ্যালিয়েনে পায়। সে মনে করে তার মা তার জন্য নতুন খেলনা কিনে এনেছে। অন্যদিকে অ্যাল রাউন্ডআপ খেলনা হারানোর ফলে তার ব্যবসায়ের ক্ষতি হয়ে যায়।

কণ্ঠসম্পাদনা

টয় স্টোরি প্রধান দুই চরিত্রের কণ্ঠ দিয়েছেন টম হ্যাঙ্কস (উপরে)টিম অ্যালেন

মূল্যায়নসম্পাদনা

বক্স অফিসসম্পাদনা

টয় স্টোরি ২ তার চলচ্চিত্র টয় স্টোরি থেকে কোন অংশে কম সফল নয়।[৫] ছবিটি ১৯৯৯ সালে যুক্তরাষ্ট্রে $২৪৫.৯ মিলিয়ন ও সারা বিশ্বে $৪৯৭.৪ মিলিয়ন আয় করে সে বছরের সর্বোচ্চ আয়ের তালিকায় প্রবেশ করে।[২] এছাড়া ছবিটি সর্বকালের সর্বোচ্চ আয়ের তালিকায় ডিজনির লায়ন কিং (১৯৯৪) এর পরে দ্বিতীয় স্থানে অবস্থান করে।[৫] যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তির প্রথম তিন দিনে (থ্যাঙ্কসগিভিং সপ্তাহে) ছবিটি ৩,২৩৬টি থিয়েটার থেকে $১৭,৭৩৪ গড়ে $৫৭,৩৮৮,৮৩৯ আয় করে এবং সপ্তাহ শেষে ৳৮০,১০২,৭৮৪ আয় করে একে অবস্থান করে।[৬] ইংরেজি নববর্ষের আগে, ছবিটি শুরু যুক্তরাষ্ট্রেই $২০০ মিলিয়নের বেশি আয় করে, এবং সব মিলিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে $২৪৫,৮৫২,১৭৯ ও দেশের বাইরে $২৫১,৫১৪,৬৯০ আয় করে বিশ্বব্যাপী মোট ৳২৯৭,৩৬৬,৮৬৯ আয় করে ১৯৯৯ সালের সর্বোচ্চ আয়ের তালিকায় তৃতীয় স্থানে অবস্থান করে।[৭] বক্স অফিস মোজো ধারণা করে উত্তর আমেরিকায় ছবিটির প্রায় ৪৭.৮ মিলিয়ন টিকেট বিক্রি হয়েছে।[৮]

সমালোচকদের প্রতিক্রিয়াসম্পাদনা

সমালোচকেরা টয় স্টোরি ২ চলচ্চিত্রটির প্রশংসা করেছেন। রটেন টম্যাটোস-এ ১৬৩টি পর্যালোচনার ভিত্তিতে ছবিটির রেটিং স্কোর ১০০% এবং গড় রেটিং ৮.৬/১০। ওয়েবসাইটটিতে সিক্যুয়ালের ক্ষেত্রে এমন অভাবনীয় সাফল্য এবং চলচ্চিত্রটির অভিনভ গল্পবলা, ঝকঝকে অ্যানিমেশন ও কণ্ঠশিল্পীদের প্রশংসা করা হয়েছে।[৯] মেটাক্রিটিক-এ ৩৪টি পর্যালোচনার ভিত্তিতে চলচ্চিত্রটির স্কোর ১০০-এ ৮৮, মানে ছবিটি সামগ্রিকভাবে প্রশংসিত।[১০] সিনেমাস্কোর-এ দর্শকদের জরিপে চলচ্চিত্রটি এ+ থেকে এফ স্কেলে "এ+" লাভ করে।[১১]

লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমসের সমালোচক কেনেথ তুরান লিখেন টয় স্টোরি ২ শিরোনামটি মৌলিক না হতে পারে কিন্তু চলচ্চিত্রটির বাকি সবকিছুই সত্যিই খুবই ভালো।[১২] শিকাগো সান-টাইমস'র সমালোচক রাজার ইবার্ট চলচ্চিত্রটিকে ৪-এ ৩.৫ দিয়েছেন এবং বলেছেন তিনি খেলনার কথা ভুলে গিয়েছিলেন এবং এই চলচ্চিত্র তাকে তা মনে করে দিয়েছে।[১৩] এন্টারটেইনমেন্ট উইকলির লিসা সোয়ার্জবাম বলেন ছবিটি অসাধারণ, বিস্ময়কর ও বুদ্ধিদীপ্ত।[১৪]

পুরস্কারসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Toy Story 2"ব্রিটিশ বোর্ড অফ ফিল্ম ক্ল্যাসিফিকেশন। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৭ 
  2. "Toy Story 2 (1999)"বক্স অফিস মোজো। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৭ 
  3. Howe, Desson (নভেম্বর ২৬, ১৯৯৯)। "'Toy Story 2': New and Improved"The Washington Post। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  4. Lang, Brent (অক্টোবর ২৬, ২০১৬)। "'Incredibles 2' Hitting Theaters a Year Early, 'Toy Story 4' Pushed Back to 2019"। ভ্যারাইটি। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৭ 
  5. Price 2008, পৃ. 185
  6. "Weekend Box Office Results for November 26-28, 1999"বক্স অফিস মোজো। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  7. "Weekend Box Office Results for January 7-9, 2000"। বক্স অফিস মোজো। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  8. "Toy Story 2 (1999)"। বক্স অফিস মোজো। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  9. "Toy Story (1999)"রটেন টম্যাটোস। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  10. "Toy Story 2 reviews"মেটাক্রিটিক। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  11. "Cinemascore :: Movie Title Search"। Cinemascore। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  12. Turan, Kenneth (নভেম্বর ১৯, ১৯৯৯)। "Seeking the Meaning of (Shelf) Life"লস অ্যাঞ্জেলেস টাইমস। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  13. ইবার্ট, রজার (নভেম্বর ২৪, ১৯৯৯)। "Toy Story 2 Review"শিকাগো সান-টাইমস। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 
  14. Schwarzbaum, Lisa (জুলাই ৩১, ২০১২)। "Toy Story 2 Review"এন্টারটেইনমেন্ট উইকলি। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জানুয়ারি ২০১৭ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা