জকিগঞ্জ উপজেলা

সিলেট জেলার একটি উপজেলা

জকিগঞ্জ বাংলাদেশের সিলেট জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা। এটি বাংলাদেশের উত্তর-পূর্ব কোনের সর্বশেষ উপজেলা। ১৯৭১ সালের ২১ নভেম্বর মুক্তিযুদ্ধে জকিগঞ্জ প্রথম দখলদার মুক্ত হয়েছিল।

জকিগঞ্জ
উপজেলা
জকিগঞ্জ সিলেট বিভাগ-এ অবস্থিত
জকিগঞ্জ
জকিগঞ্জ
জকিগঞ্জ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
জকিগঞ্জ
জকিগঞ্জ
বাংলাদেশে জকিগঞ্জ উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৫২′২৬″ উত্তর ৯২°২২′৩২″ পূর্ব / ২৪.৮৭৩৮৯° উত্তর ৯২.৩৭৫৫৬° পূর্ব / 24.87389; 92.37556স্থানাঙ্ক: ২৪°৫২′২৬″ উত্তর ৯২°২২′৩২″ পূর্ব / ২৪.৮৭৩৮৯° উত্তর ৯২.৩৭৫৫৬° পূর্ব / 24.87389; 92.37556 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগসিলেট বিভাগ
জেলাসিলেট জেলা
আয়তন
 • মোট২৬৫.৬৮ বর্গকিমি (১০২.৫৮ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১]
 • মোট২,৪২,৫৬১
 • জনঘনত্ব৯১০/বর্গকিমি (২,৪০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৫০%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৬০ ৯১ ৯৪
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

অবস্থানসম্পাদনা

সিলেট জেলার অন্তর্গত জকিগঞ্জ উপজেলা বাংলাদেশের সর্ব উত্তর-পূর্বাংশে অবস্থিত। ২৬৫.৬৮ বর্গ কিলোমিটার নিয়ে গঠিত জকিগঞ্জ উপজেলা ২৪°৫১′ উত্তর অক্ষাংশ হতে ২৫°০০′ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৯২°১৩′ পূর্ব দ্রাঘিমা হতে ৯২°৩০′ পূর্ব দ্রাঘিমা রেখার মধ্যে অবস্থিত। জকিগঞ্জের উত্তরে ভারতের কাছাড় জেলার কাটিগড় থানা এবং বাংলাদেশের কানাইঘাট উপজেলা, দক্ষিণে ভারতের করিমগঞ্জ জেলা, পশ্চিমে বাংলাদেশের বিয়ানীবাজার উপজেলা, এবং পূর্বে ভারতের কাছাড় ও করিমগঞ্জ জেলা অবস্থিত।[২]

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

জকিগঞ্জ উপজেলায় বর্তমানে ১টি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়ন রয়েছে। সম্পূর্ণ উপজেলার প্রশাসনিক কার্যক্রম জকিগঞ্জ থানার আওতাধীন।[৩]

পৌরসভা:
ইউনিয়নসমূহ:

এ উপজেলায় মোট ১১৫ মৌজা এবং ২৮৬ গ্রাম রয়েছে।

নামকরণসম্পাদনা

কুশিয়ারা নদীর তীরে ৩৬০ আউলিয়ার একজন হযরত শাহ জাকি রহ. নামে একজন আউলিয়ার মাযার ছিল। তাঁর মাযারকে কেন্দ্র করে যে সাপ্তাহিক বাজার বসত, তা জাকিগঞ্জ নামে পরিচিতি লাভ করে। পরবর্তীতে উক্ত বাজারের নামে এই এলাকার নামকরণ করা হয় জকিগঞ্জ। [২]

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

আয়তন: ২৬৭বর্গ কিলোমিটার, জনসংখ্যা: ২,৪২,৫৬১ জন, পুরুষ: ১,২২,০৬১ জন, মহিলা: ১,২০,৫০০ জন, জনসংখ্যার ঘনত্ব: প্রতি বর্গকিলোমিটারে ৮৯০ জন।

শিক্ষাসম্পাদনা

উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ: ৭ টি(১ টি সরকারি, ৬টি বেসরকারি ), মাধ্যমিক বিদ্যালয়: ২২টি, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়: ১০৭টি, কমিউনিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়: ৫টি, রেজিস্টার্ড বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়: ১৯টি, মাদ্রাসা (সকল): ৫৭টি (২১ টি দাখিল ও কামিলসহ এবং ৩৬ টি কওমী ), সাক্ষরতার হার: ৭৮%। জকিগঞ্জে কোনো বিশ্ববিদ্যালয় নেই।(গোলাম মোস্তাফা চৌধুরী একাডেমিক স্কুল এন্ড কলেজ একটি নাম করা বিদ্যাপীঠ www.fb.me/gmcsc22 )

অর্থনীতিসম্পাদনা

জনগোষ্ঠীর আয়ের প্রধান উৎস কৃষি ৪৬.০৬%, অকৃষি শ্রমিক ৯.০৬%, শিল্প ০.৭৪%, ব্যবসা ১২.৮৪%, পরিবহন ও যোগাযোগ ১.৬৪%, চাকরি ৫.৮০%, নির্মাণ ১.৮৪%, ধর্মীয় সেবা ১.১৯%, রেন্ট অ্যান্ড রেমিটেন্স ৬.৯৩% এবং অন্যান্য ১৩.৯০%।

বিদ্যুৎ ব্যবহার এ উপজেলার সবক’টি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন পল্লিবিদ্যুতায়ন কর্মসুচির আওতাধীন। তবে ১৭.৫৪% পরিবারের বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে। পানীয়জলের উৎস নলকূপ ৩৬.৮৩%, ট্যাপ ১.৬১%, পুকুর ৫৯.৮১% এবং অন্যান্য ১.৭৪%। এ উপজেলার ১৮.১৯% নলকূপের পানিতে মাত্রাতিরিক্ত আর্সেনিকের উপস্থিতি প্রমাণিত হয়েছে। স্যানিটেশন ব্যবস্থা এ উপজেলার ৯৮.৫০% পরিবার স্বাস্থ্যকর এবং ১.৫০% পরিবার অস্বাস্থ্যকর ল্যাট্রিন ব্যবহার করে। স্বাস্থ্যকেন্দ্র হাসপাতাল ৪, উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র ১, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র ১০ কমিউনিটি ক্লিনিক ২৬ টি ।[৪]

কৃতী ব্যক্তিত্বসম্পাদনা

দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "জকিগঞ্জ উপজেলা"zakiganj.sylhet.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-০৪ 
  2. প্রসঙ্গ জকিগঞ্জ ইতিহাস ও ঐতিহ্য, পৃ: ১-২
  3. "ইউনিয়নসমূহ - জকিগঞ্জ উপজেলা"zakiganj.sylhet.gov.bd। জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 
  4. "জকিগঞ্জ উপজেলা - বাংলাপিডিয়া"bn.banglapedia.org। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০১-০৪ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা