গ্লো-বো-ম্খান-ছেন-ব্সোদ-নাম্স-ল্হুন-গ্রুব

গ্লো-বো-ম্খান-ছেন-ব্সোদ-নাম্স-ল্হুন-গ্রুব (ওয়াইলি: glo bo mkhan chen bsod nams lhun grub) (১৪৫৬-১৫৩২) থুব-ব্স্তান-দার-র্গ্যাল-গ্লিং (ওয়াইলি: thub bstan dar rgyal gling) বৌদ্ধবিহারের প্রধান ছিলেন।

গ্লো-বো-ম্খান-ছেন-ব্সোদ-নাম্স-ল্হুন-গ্রুব

জন্ম ও শিক্ষা

সম্পাদনা

গ্লো-বো-ম্খান-ছেন-ব্সোদ-নাম্স-ল্হুন-গ্রুব মুস্তাং রাজ্যের রাজা আ-ম্গোন-ব্জাং-পোর (ওয়াইলি: a mgon bzang po) তৃতীয় সন্তান ছিলেন। তার মাতা দ্পাল-স্ক্যোং (ওয়াইলি: dpal skyong) ছিলেন স্তাগ-রা-ক্লু-গোং (ওয়াইলি: stag ra klu gong) পরিবারগোষ্ঠীর মহিলা। জন্মের সময় তার নাম রাখা হয় গ্রুব-ব্ক্রা-শিস (ওয়াইলি: grub bkra shis)। শৈশবেই তিনি 'জাম-দ্ব্যাংস-শেস-রাব-র্গ্যা-ম্ত্শো নামক বৌদ্ধ পণ্ডিতের নিকটে আশ্রয় লাভ করেন। ১৪৬৩ খ্রিষ্টাব্দে য়োন-তান-ছোস-র্গ্যাল (ওয়াইলি: yon tan chos rgyal) নামক থুব-ব্স্তান-দার-র্গ্যাল-গ্লিং (ওয়াইলি: thub bstan dar rgyal gling) বৌদ্ধবিহারের প্রধান তাকে উপাসকের শপথ প্রদান করেন। ১৪৬৬ খ্রিষ্টাব্দে কুন-দ্গা'-দ্বাং-ফ্যুগ নামক পণ্ডিত তাকে শ্রমণের শপথ প্রদান করেন। এরপর তিনি ছোস-র্জে-রা-ছেন-পা (ওয়াইলি: chos rje ra chen pa) এবং র্বা-স্তোন-য়োন-তান-দ্পাল-ব্জাং-পো (ওয়াইলি: rwa ston yon tan dpal bzang po) নামক বিহারের নিকট মধ্যমক, প্রজ্ঞাপারমিতা ও প্রমাণ সম্বন্ধে ছয় বছর ধরে অধ্যয়ন করেন। তার যখন সতেরো বছর বয়স, সেই সময় তাকে য়োন-তান-ছোস-র্গ্যাল (ওয়াইলি: yon tan chos rgyal) মধ্যমক এবং দ্পাল-ল্দান-ত্শুল-খ্রিম্স-র্গ্যাল-ম্ত্শান (ওয়াইলি: dpal ldan tshul khrims rgyal mtshan) বিনয় ও গুহ্যসমাজতন্ত্র সম্বন্ধে শিক্ষাদান করেন। তার অন্যান্য উল্লেখযোগ্য শিক্ষক ছিলেন মুস-ছেন-সেম্স-দ্পা'-ছেন-পো-দ্কোন-ম্ছোগ-র্গ্যাল-ম্ত্শান নামক দ্বিতীয় ঙ্গোর-ছেন এবং গ্ত্সাং-স্ম্যোন-হেরুকা নামক বিখ্যাত বৌদ্ধ সাধক। ১৪৭৭ খ্রিষ্টাব্দে কুন-দ্গা'-দ্বাং-ফ্যুগ, র্বা-স্তোন-য়োন-তান-দ্পাল-ব্জাং-পো (ওয়াইলি: rwa ston yon tan dpal bzang po), য়োন-তান-ছোস-র্গ্যাল (ওয়াইলি: yon tan chos rgyal) এবং ব্কা-ব্চু-পা-সাংস-র্গ্যাস-র্গ্যাল-ম্ত্শান (ওয়াইলি: bka bcu pa sangs rgyas rgyal mtshan) তাকে ভিক্ষুর শপথ দান করেন।[১]

পরবর্তী জীবন ও রচনা

সম্পাদনা

ভিক্ষু হওয়ার কিছুদিন পরেই তাকে থুব-ব্স্তান-দার-র্গ্যাল-গ্লিং বৌদ্ধবিহারের প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করা হয় ও ঐ পদে তিনি বারো বছর থাকেন। এই সময়কালেই ১৪৮২ খ্রিষ্টাব্দে তিনি কুন-দ্গা'-র্গ্যাল-ম্ত্শান-দ্পাল-ব্জাং-পো নামক ষষ্ঠ সা-স্ক্যা-খ্রি-'দ্জিন রচিত ৎশাদ-মা-রিগ্স-পা'ই-গ্তের (ওয়াইলি: Tshad ma rigs pa'i gter) গ্রন্থের ওপর দুইখানি টীকাভাষ্য রচনা করেন। ১৪৮৯ খ্রিষ্টাব্দে তিনি কুন-দ্গা'-র্গ্যাল-ম্ত্শান-দ্পাল-ব্জাং-পো রচিত স্দোম-গ্সুম-রাব-দ্ব্যে (ওয়াইলি: Sdom gsum rab dbye) গ্রন্থের ওপর একটি টীকাভাষ্য রচনা করেন, যার ফলে তার ভ্রাতা ও মুস্তাং রাজ্যের রাজা ত্শাং-পা-ব্ক্রা-শিস-ম্গোনের (ওয়াইলি: tshang pa bkra shis mgon) সঙ্গে তার মতাদর্শগত বিরোধ দেখা দেয়। এরফলে ১৪৯৩ খ্রিষ্টাব্দে তিনি তিব্বত চলে যেতে বাধ্য হন। তিব্বতে ঙ্গোর-এ-বাম-ছোস-ল্দান বৌদ্ধবিহারে দ্কোন-ম্ছোগ-'ফেল-বা নামক সপ্তম ঙ্গোর-ছেনকে শিক্ষাদান করেন এবং 'জাম-পা'ই-র্দো-র্জেকে শিক্ষার্থীর শপথ দান করেন। এই সময় তার ভাইয়ের মৃত্যু হলে তিনি মুস্তাং ফিরে যান, কিন্তু ১৫০৫ খ্রিষ্টাব্দের ৬ই ও ৭ই জুন তারিখের ৮.২ তীব্রতার ভূমিকম্পে দক্ষিণ তিব্বত ও মুস্তাং বিধ্বস্ত হলে তিনি পুনরায় তিব্বত যাত্রা করেন। এই সময় তিনি গো-রাম্স-পা-ব্সোদ-নাম্স-সেং-গে নামক ষষ্ঠ ঙ্গোর-ছেনের জীবনী রচনা করেন। তার উল্লেখযোগ্য শিষ্য ছিলেন ল্হা-ম্ছোগ-সেং-গে নামক নবম ঙ্গোর-ছেন, দ্কোন-ম্ছোগ-ল্হুন-গ্রুব নামক দশম ঙ্গোর-ছেন এবং কুন-দ্গা'-গ্রোল-ম্ছোগ নামক জো-নাং বৌদ্ধবিহারের চব্বিশতম প্রধান। ১৫২৭ খ্রিষ্টাব্দে তিনি কুন-দ্গা'-র্গ্যাল-ম্ত্শান-দ্পাল-ব্জাং-পো রচিত ম্খাস-পা-র্নাম-'জুগ-পা'ই-স্গো (ওয়াইলি: Mkhas pa rnam 'jug pa'i sgo) নামক গ্রন্থের ওপর টীকাভাষ্য রচনা করেন। এছাড়াও তিনি দুই শত আটান্নটি গ্রন্থ রচনা করেন।[১]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. Chhosphel, Samten (2011-02)। "Lowo Khenchen Sonam Lhundrub"The Treasury of Lives: Biographies of Himalayan Religious Masters। সংগ্রহের তারিখ 2014-04-29  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)

আরো পড়ুন

সম্পাদনা
  • Jackson, David. 1984. The Mollas of Mustang: Historical, Religious, and Oratorical Traditions of the Nepalese-Tibetan Borderland. Dharamsala: Library and Tibetan Works and Archives.
  • Jackson, David. 1989. "Sources on the chronology and Succession of the Abbots of Ngor e wam chos ldan." Berliner Indoligische Studien, vol 4/5, pp. 49–94.
  • Jackson, David. 1990. "The Identification of Individual Teachers in Paintings of Sa-skya-pa Lineages." In: Tadeusz Skorupski, ed. Indo-Tibetan Studies Papers in Honour and Appreciation of Prof. David Snellgrove's Contribution to Indi-Tibetan Studies. Tring: The Institute of Buddhist Studies, pp. 129–146.
  • Jackson, David. 1991. "Fragments of a 'Golden' Manuscript of Sa kya Paṇḍita's works." Tibet Journal, vol. 16 no. 3-33.
  • Jackson David. 2002. The great western-Himalayan earthquake of 1505: A rupture of the central Himalayan gap? In Tibet, Past and Present. Henk Blezer, ed, pp. 147–159. Leiden: Brill.
  • Kramer, Jowita. 2008. A Noble Abbot from Mustang. Life and Works of Glo-bo mKhan-chen (1456-1532). Vienna: Arbeitskreis für Tibetische und Buddhistische Studien.
  • Smith, Gene. 2001. “'Glo bo Mkhan chen and Buddhist Logic in Tibet.” In Among Tibetan Texts. Boston: Wisdom Publications, pp. 111–116.