গ্রাফিক আর্টস ইন্সটিটিউট

গ্রাফিক আর্টস ইন্সটিটিউট বাংলাদেশের একমাত্র প্রিন্টিং এবং গ্রাফিক ডিজাইন ইন্সটিটউট । এই পলিটেকনিক ইন্সটিটউটটি ১৯৬৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এই প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে চার বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সে ৩ টি বিভাগ চলমান রয়েছে। [১]

গ্রাফিক আর্টস ইন্সটিটিউট
ধরনসরকারী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট
স্থাপিত১৯৬৭
অধ্যক্ষইঞ্জিঃ নিহার রঞ্জন দাস
প্রশাসনিক কর্মকর্তা
৪০
শিক্ষার্থী৫০০
অবস্থান
সাত মসজিদ রোড, মোহাম্মদপুর, ঢাকা -১২০৭
,
২৩°৪৫′১৩″ উত্তর ৯০°২১′৫৪″ পূর্ব / ২৩.৭৫৩৬৯৩° উত্তর ৯০.৩৬৫০৯৩° পূর্ব / 23.753693; 90.365093স্থানাঙ্ক: ২৩°৪৫′১৩″ উত্তর ৯০°২১′৫৪″ পূর্ব / ২৩.৭৫৩৬৯৩° উত্তর ৯০.৩৬৫০৯৩° পূর্ব / 23.753693; 90.365093
শিক্ষাঙ্গনশহুরে
২০ একর (৮.১ হেক্টর)
অধিভুক্তিবাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষা বোর্ড
ওয়েবসাইটwww.gai.gov.bd

অবস্থানসম্পাদনা

গ্রাফিক আর্টস ইন্সটিটিউটটি ঢাকার মোহাম্মদপুরের সাত মসজিদ রোড এ অবস্থিত।

ইতিহাসসম্পাদনা

উক্ত ইন্সটিটিউটটি ১৯৬৭ সালে ঢাকায় প্রতিষ্ঠিত হয় । এর প্রধান উদ্যোক্তা হিসেবে তৎকালীন কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. ওয়াকার আহমেদ ও পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর আযম খান ছিলেন । এ ব্যাপারে তৎকালীন সরকার প্রাথমিক পদক্ষেপ হিসেবে একটি ট্রেনিং স্কিম চালু করে। এ স্কিমের চিফ ইন্সট্রাক্টর পদের জন্য নির্বাচিত ড. আর. কে মোল্লাকে যুক্তরাষ্ট্রের সাউথ ডেকোটা বিশ্ববিদ্যালয়ে মুদ্রণের উপর উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণের জন্য পাঠানো হয় এবং অন্যান্য ইন্সট্রাক্টরদের প্রশিক্ষণ সেন্ট্রাল গভর্নমেন্ট প্রিন্টিং প্রেসে চলতে থাকে। যুক্তরাষ্ট্রে ট্রেনিং শেষে আর. কে মোল্লা গ্রাফিক আর্টস ইনস্টিটিউটের প্রথম অধ্যক্ষ হিসাবে যোগদান করেন। তাছাড়া এই ইন্সটিটিউটের যাত্রা শুরু হয় ২৫ টি আসন দিয়ে। [২]

শিক্ষাব্যবস্থাসম্পাদনা

এই ইন্সটিটিউটটি বর্তমানে একটি পূর্ণাঙ্গ মুদ্রণ প্রযুক্তি ইন্সটিটিউটটে পরিণত হয়েছে। এখানে মুদ্রণের প্রাথমিক স্তরের মুভেবল টাইপ, লাইনো টাইপ মেশিন এবং লেটার প্রেস, গ্যালারি টাইপ ক্যামেরা থেকে শুরু করে আধুনিক প্রযুক্তির অফসেট লিথোগ্রাফি, গ্র্যাভিউর, স্ক্রিন প্রিন্টিং, অত্যাধুনিক প্রসেস ক্যামেরা (হরাইজন্টাল এবং ভার্টিক্যাল) অটোপ্লেট প্রসেসর, লিথো ফিল্ম, প্যানক্রোমাটিক ফিল্ম প্রযুক্তিসহ এখন উন্নত ধরনের মেকানিজম সংযোগ করা হয়েছে। আধুনিক বিশ্বের সাথে বাংলাদেশের মুদ্রণ শিল্প প্রতিষ্ঠানের সমন্বয় সাধনের লক্ষ্যে ১৯৯৫-৯৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে নতুন পাঠ্যক্রম কম্পিউটার গ্রাফিক পদ্ধতি প্রবর্তন করা হয়েছে। স্থাপিত হয়েছে অত্যাধুনিক কম্পিউটার ল্যাব, যেখানে ইমেজ সেন্টার, ড্রাম স্ক্যানার, ফ্লাটবেড স্ক্যানার, লেজার প্রিন্টার, ইন্ক জেট প্রিন্টারসহ আধুনিক যন্ত্রপাতি রয়েছে। প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে গ্রাফিক আর্টস ইন্সটিটিউটটি কারিগরি শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক ছয়টি সেমিস্টারে তিন বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা-ইন-প্রিন্টিং টেকনোলজিতে ডিগ্রি প্রদান করে এসেছে। তার পরবর্তীতে ২০০১-২০০২ শিক্ষাবর্ষ থেকে আটটি সেমিস্টারে চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা-ইন-প্রিন্টিং টেকনোলজি কোর্স চালু করা হয়েছে। [৩]

টেকনোলজি এবং আসনসংখ্যাসম্পাদনা

একাডেমিক টেকনোলজি সমূহের মধ্যে রয়েছে:

  1. কম্পিউটার
  2. গ্রাফিক ডিজাইন
  3. প্রিন্টিং টেকনোলজি

ছাত্রাবাসসম্পাদনা

ছাত্রদের জন্য ১টি ২০০ সিটের আবাসিক হল রয়েছে।

ছাত্র সংগঠনসম্পাদনা

  • রোভার স্কাউট

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা