প্রধান মেনু খুলুন


গোলাম মোহাম্মদ ছিলেন আশির দশকের বাংলাদেশের একজন কবি।[১] গ্রামীণ রূপ, বৈচিত্র্য আর প্রকৃতি তার কবিতায় চিত্রিত হয়েছে।

পরিচ্ছেদসমূহ

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

গোলাম মোহাম্মদ ১৯৫৯ সালের ২৩ এপ্রিল মাগুরা জেলার মোহাম্মদপুর থানার গোলাপনগর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা আবদুল মালেক মোল্লা এবং মাতা করিমন নেসা। শৈশবে তিনি গ্রামেই বেড়ে ওঠেন। ১৯৬৪ সালে গোলাপনগর সরকারি প্রাইমারী বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষা শুরু করেন। ১৯৬৯ সালে তিনি প্রাথমিক বৃত্তি লাভ করেন। এরপর এম কে এইচ ইনস্টিটিউশন, মোহাম্মদপুর থেকে ১৯৭৫ সালে প্রথম বিভাগে এসএসসি পাশ করেন। ১৯৭৮ সালে ঝিনাইদাহ কেসি কলেজ থেকে আইএসসি পাশের পর মাগুরা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে ভর্তি হন। সেখান থেকে তিনি বিএসসি পাস করেন। উদ্ভিদ বিজ্ঞান ছিল তার প্রধান বিষয়।

কর্মজীবনসম্পাদনা

১৯৮১ সালের শেষ দিকে কবি গোলাম মোহাম্মদ ঢাকায় আসেন। কিছুদিন বিআইসিতে চাকরির পর নিজেই ‘শিল্পকোণ’ নামে একটি গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রতিষ্ঠান দেন। এখান থেকেই তিনি বিভিন্ন জায়গায় প্রকাশনার টেকনিক্যাল কাজের সহায়তা দিতেন। অসংখ্য বইয়ের প্রচ্ছদও তিনি করেছেন। জীবনের শেষ দিকে তিনি বাংলা সাহিত্য পরিষদ ও স্পন্দন অডিও ভিজ্যুয়াল সেন্টারের সাথে জড়িত ছিলেন।

লেখালেখিসম্পাদনা

১৯৭৪-৭৫ সাল থেকেই তিনি লেখালেখি শুরু করেন। ১৯৮১ সাল থেকে তার লেখা জাতীয় দৈনিকে নিয়মিত প্রকাশিত হতে থাকে। তবে এই কবির প্রথম বই প্রকাশিত হয় ১৯৯৭ সালে। এরপরে মোহাম্মদের বেঁচে থাকা অবস্থায়ই ৭টি বই বের হয়। তার এ পর্যন্ত প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থগুলো হচ্ছে:

  1. অদৃশ্যের চিল (১৯৯৭)
  2. ফিরে চলা এক নদী (১৯৯৮)
  3. হিজল বনের পাখি (১৯৯৯)
  4. ঘাসফুল বেদনা (২০০০)
  5. হে সুদূর হে নৈকট্য (২০০২)
  6. ছড়ায় ছড়ায় সুরের মিনার (২০০১)
  7. নানুর বাড়ী (২০০২)
  8. গোলাম মোহাম্মদ গীতিসমগ্র (২০১৮)

সম্পাদনাসম্পাদনা

গোলাম মোহাম্মদ কিছু সংকলন সম্পাদনাও করেন। নাবিক, মননশীল সাহিত্যপত্র (এপ্রিল ১৯৯৭), পিকনিকে শালনার (১৯৯৯) ঢাকা সাহিত্য সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, চঁড় ইভাতির এই মেলায়, ঢাকা সাহিত্য সাংস্কৃতিক কেন্দ্র,  বনভোজন স্মারক- ২০০১, এলো বৈশাখ এপ্রির ২০০২, ঢাকা সাহিত্য সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। ১ম হামদ নাত ও কবিতা সন্ধ্যা (২০০২) তিনি সম্পাদনা করেন।[২]

ব্যক্তিজীবনসম্পাদনা

১৯৮৭ সালের ১৬ এপ্রিল তিনি শাহীন আখতারের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তিনি একছেলে ও এক মেয়ের জনক ছিলেন। আর দুই ভাই ও পাঁচ বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন পঞ্চম।

মৃত্যুসম্পাদনা

২২ আগষ্ট ২০০২ সালে বৃহস্পতিবার ভোরে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে ৪৩ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা