প্রধান মেনু খুলুন

গোমস্তাপুর উপজেলা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার একটি উপজেলা
এই নিবন্ধটি গোমস্তাপুর উপজেলা সম্পর্কিত। ইউনিয়নের জন্য গোমস্তাপুর ইউনিয়ন নিবন্ধ দেখুন।

গোমস্তাপুর উপজেলা বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার একটি প্রশাসনিক এলাকা।[২][৩]

গোমস্তাপুর
উপজেলা
গোমস্তাপুর বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
গোমস্তাপুর
গোমস্তাপুর
বাংলাদেশে গোমস্তাপুর উপজেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৬′২৬″ উত্তর ৮৮°১৬′৫৬″ পূর্ব / ২৪.৭৭৩৮৯° উত্তর ৮৮.২৮২২২° পূর্ব / 24.77389; 88.28222স্থানাঙ্ক: ২৪°৪৬′২৬″ উত্তর ৮৮°১৬′৫৬″ পূর্ব / ২৪.৭৭৩৮৯° উত্তর ৮৮.২৮২২২° পূর্ব / 24.77389; 88.28222 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগরাজশাহী বিভাগ
জেলাচাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা
আয়তন
 • মোট৩১৮.১৩ কিমি (১২২.৮৩ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (2011)[১]
 • মোট২,৪০,১২৩
 • জনঘনত্ব৭৫০/কিমি (২০০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৬৫%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
পোস্ট কোড৬৩২০ উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৫০ ৭০ ৩৭
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট Edit this at Wikidata

অবস্থান ও আয়তনসম্পাদনা

এই উপজেলাটি মোট আয়তন ৩২৮.১৩ বর্গ কিলোমিটার। উপজেলার ভৌগোলিক অবস্থান উত্তর অক্ষাংশের ২৪°৪৪' এবং ২৪°৫৮' অক্ষাংশ ও পূর্ব গোলার্ধে ৮৮.১৩ এবং ৮৮.৫৮ দ্রাঘিমাংশের অবস্থিত। উত্তরে ভারত, পূর্বে পোরশা উপজেলানিয়ামতপুর উপজেলা, দক্ষিণে শিবগঞ্জ উপজেলা এবং পশ্চিমে ভোলাহাট উপজেলা

ইতিহাসসম্পাদনা

এক সময় এখানে রাজার গোমস্তারা বসবাস করত সে সময় থেকে এই উপজেলার নাম গোমস্তাপুর রাখা হয়। চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলা ০৮ টি ইউনিয়ন নিয়ে ১৯১৭ সালের ১৫ জুলাই প্রতিষ্ঠা হয়। ঐ সালের ২১ সেপ্টেম্বর গেজেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হওয়ার পর ১৯১৮ সালের ১ জানুয়ারি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে গোমস্তাপুর থানার কার্যক্রম চালু হয়। এই এলাকার ইতিহাস পর্যালোচনায় দেখা যায় যে গোমস্তাপুরের সভ্যতা বহুপ্রাচীন। এছাড়াও এ এলাকায় কিছুক্ষুদ্র জাতিসত্বা বসবাস করে যাদের নিজস্ব ভাষা ও সংস্কৃতি রয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধ

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন গোমস্তাপুর উপজেলা ৭ নং সেক্টরের অধীনে ছিল। পাক সেনারা রহনপুর এ. বি. সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে গড়ে তোলে সেনা ক্যাম্প। অত্র এলাকার মুক্তিযোদ্ধারা ১৯৭১ সালের ১১ ডিসেম্বর লেফটেন্যান্ট রফিকের নেতৃত্বে পাক সেনাদেরকে বিতাড়িত করতে সক্ষম হন। সেই থেকে গোমস্তাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের উদ্যোগে প্রতিবছর ১১ ডিসেম্বর দিনটিকে রহনপুর মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করা হয়।[৪]

 
রহনপুর এ অবস্থিত উপজেলা পরিষদ অফিস এর প্রধান ফটক

ভৌগোলিক উপাত্তসম্পাদনা

ভাষা ও সংষ্কৃতিসম্পাদনা

গোমস্তাপুর উপজেলার ভূ-প্রকৃতি ও ভৌগোলিক অবস্থান এই উপজেলার মানুষের ভাষা ওসংস্কৃতি গঠনে ভূমিকা রেখেছে। বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে অবস্থিত এইউপজেলাকে ঘিরে রয়েছে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য, চাঁপাইনবাবগঞ্জ তথা রাজশাহী বিভাগের অন্যান্য উপজেলাসমূহ। এখানে ভাষার মূল বৈশিষ্ট্য বাংলাদেশের অন্যান্য উপজেলার মতই, তবুও কিছুটা বৈচিত্র্য খুঁজে পাওয়া যায়। যেমন কথ্য ভাষায় মহা প্রাণধ্বনি অনেকাংশে অনুপস্থিত, অর্থাৎ ভাষা সহজীকরণের প্রবণতা রয়েছে।[৫] এ উপজেলায় সাঁওতাল, মুন্ডা, ওঁরাও, মাহালী প্রভৃতি আদিবাসী জনগোষ্ঠীর বসবাস লক্ষ্য করা যায়। এবং এসব জনগোষ্ঠির স্বতন্ত্র ভাষা ও সংস্কৃতির প্রভাব আশে পাশের অঞ্চলেও বিশেষ ভাবে লক্ষনীয়।

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

২০১১ সালের আদমশুমারী অনুযায়ী এই এলাকার জনসংখ্যা ২,৪০,১২৩ জন; এর মধ্যে পুরুষ ১,২২,৩২৫ জন ও মহিলা ১,১৭,৭৯৮ জন। এখানে মুসলিম ২,২২,৫৬৮ জন, হিন্দু ১৪,৪২০ জন, বৌদ্ধ ১,৬২৪ জন, খ্রিস্টান ৫০ জন এবং অন্যান্য ১,৪৬১ জন।

স্বাস্থ্যসম্পাদনা

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহসম্পাদনা

কৃষিসম্পাদনা

অর্থনীতিসম্পাদনা

যোগাযোগ ব্যবস্থাসম্পাদনা

কৃতী ব্যক্তিত্বসম্পাদনা

দর্শনীয় স্থান ও স্থাপনাসম্পাদনা

বিবিধসম্পাদনা

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসুত্রসম্পাদনা

  1. "এক নজরে গোমস্তাপুর উপজেলা"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। জুন ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুলাই ২০১৪ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "গোমস্তাপুর উপজেলা - বাংলাপিডিয়া"বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-১০ 
  3. "গোমস্তাপুর উপজেলা"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৮-১০ 
  4. "রহনপুর মুক্ত দিবস পালিত" [Rahanpur- Free Day]। চাঁপাই সংবাদ (Bengali ভাষায়)। December 11th, 2015।  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. "ভাষা ও সংষ্কৃতি" [Language and culture] (Bengali ভাষায়)। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। ১ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ ডিসেম্বর ২০১৫ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা