গড় পঞ্চকোট ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া জেলায় পঞ্চকোট পাহাড়ের কোলে অবস্থিত একটি প্রত্নস্থল। এই স্থানটি ঐ অঞ্চল শাসনকারী শিখর রাজবংশের রাজধানী ছিল।[১]:১৯৮

গড় পঞ্চকোট
গড় পঞ্চকোটে অবস্থিত ভগ্নপ্রায় পঞ্চরত্ন মন্দির
গড় পঞ্চকোটে অবস্থিত ভগ্নপ্রায় পঞ্চরত্ন মন্দির
গড় পঞ্চকোট পশ্চিমবঙ্গ-এ অবস্থিত
গড় পঞ্চকোট
গড় পঞ্চকোট
পশ্চিমবঙ্গে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২৩°৩৬′০০″ উত্তর ৮৬°৪৬′০০″ পূর্ব / ২৩.৬° উত্তর ৮৬.৭৬৬৬৭° পূর্ব / 23.6; 86.76667স্থানাঙ্ক: ২৩°৩৬′০০″ উত্তর ৮৬°৪৬′০০″ পূর্ব / ২৩.৬° উত্তর ৮৬.৭৬৬৬৭° পূর্ব / 23.6; 86.76667
দেশ India
রাজ্যপশ্চিমবঙ্গ
জেলাপুরুলিয়া
প্রতিষ্ঠা করেনকীর্ত্তিনাথ শেখর

গড়সম্পাদনা

গড় পঞ্চকোট প্রায় পাঁচ মাইল বিস্তৃত একটি দুর্গ ছিল। এই গড়ের চারিপাশের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বারো বর্গমাইল এলাকা জুড়ে বিস্তৃত ছিল[n ১] এবং এটি পরিখা দিয়ে ঘেরা ছিল। মূল দুর্গ পাথরের দেওয়াল দিয়ে ঘেরা ছিল।

স্থাপত্যসম্পাদনা

গড় পঞ্চকোটের অধিকাংশ স্থাপত্য বর্তমানে ধ্বংসপ্রাপ্ত বা অবলুপ্তির পথে। এই স্থানে বেশ কয়েকটি মন্দির রয়েছে, যেগুলি উপযুক্ত সংরক্ষণের অভাবে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে।

তোরণসম্পাদনা

১৮৭২ খ্রিষ্টাব্দে জে ডি বেগলার গড় পঞ্চকোট ভ্রমণ করে আঁখ দুয়ার, বাজার মহল দুয়ার, খড়িবাড়ি দুয়ার এবং দুয়ার বাঁধ নামক চারটি তোরণের বর্ণনা করেন। তিনি দুয়ার বাঁধ ও খড়িবাড়ি দুয়ারের গায়ে উৎকীর্ণ লিপিতে মল্লরাজ বীর হাম্বিরের নামের উপস্থিতি লক্ষ্য করেন, যা থেকে প্রমাণ পাওয়া যায় যে পঞ্চকোট রাজ্য মল্লভূমের অধীনস্থ হয়েছিল।[১]:১৯৯

পঞ্চরত্ন মন্দিরসম্পাদনা

গড় পঞ্চকোটের সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য মন্দির হল একটি পঞ্চরত্ন টেরাকোটা নির্মিত দক্ষিণ ও পূর্বদুয়ারী রাস মন্দির। মন্দিরের গায়ে ফুল ও আলপনার নকশা ছাড়াও খোল, করতাল বাদনরত ও নৃত্যরত মানব-মানবীর মূর্তি পরিলক্ষিত হয়। ষাট ফুট উচ্চ কেন্দ্রীয় চূড়া বিশিষ্ট ভগ্নপ্রায় এই মন্দিরে কোন বিগ্রহ নেই। উত্তরপশ্চিম দিকে অপর একটি পঞ্চরত্ন টেরাকোটা মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ রয়েছে, বর্তমানে যার চারটি চূড়া নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে ও মধ্যের ৪০ ফুট উচ্চ চূড়াটি অবশিষ্ট রয়েছে।[১]:২০০

কঙ্কালী মাতার মন্দিরসম্পাদনা

গড়ের পশ্চিমদিকে প্রস্তর নির্মিত কঙ্কালী মাতার ভগ্নপ্রায় মন্দিরের অস্তিত্ব বর্তমান। মন্দিরের সামনের অংশ অক্ষত হলেও পেছনের অংশ সম্পূর্ণ ধ্বংসপ্রাপ্ত। কঙ্কালী মাতা পঞ্চকোট রাজ্যের কুলদেবী হলেও বর্তমানে এই মন্দিরে কোন বিগ্রহ নেই। মন্দিরের প্রবেশপথের ওপরে কোন লিপি বা মূর্তি খোদিত ছিল, যা বর্তমানে বিনষ্ট হয়েছে।[১]:২০০

অন্যান্য স্থাপত্যসম্পাদনা

গড়ের বাম দিকে প্রস্তর নির্মিত কল্যাণীশ্বরী দেবী মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ বর্তমান। এছাড়াও দুইটি প্রায় ধ্বংসপ্রাপ্ত জোড়বাংলা মন্দির এই স্থানে অবস্থিত। এছাড়া পঞ্চকোট পাহাড়ের পাদদেশে রাজপ্রাসাদের ধ্বংসাবশেষ ও কর্মচারীদের বাসস্থান অবস্থিত।[১]:২০০

চিত্রশালাসম্পাদনা

পাদটীকাসম্পাদনা

  1. The fort is very large, the outermost ramparts having a total length of more than five miles, while the traditional outer most defence viz, ridge lines round the fort enclose a space of 12 square miles, exclusive the hill itself.[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. সুভাষ রায়, পুরুলিয়া জেলার পুরাকীর্তি, পুরুলিয়ার কয়েকটি প্রত্নস্থল, অনৃজু প্রকাশনী, চেলিয়ামা, পুরুলিয়া, ৭২৩১৪৬, প্রথম প্রকাশ, আশ্বিন ১৪১৯
  2. J. D. Beglar, Report of a tour through the Bengal Provinces in 1872-1873.