গডফ্রে ক্রিপস

দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটার

গডফ্রে ক্রিপস (ইংরেজি: Godfrey Cripps; জন্ম: ১৯ অক্টোবর, ১৮৬৫ - মৃত্যু: ২৭ জুলাই, ১৯৪৩) তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের মুসৌরী এলাকায় জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৯২ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১]

গডফ্রে ক্রিপস
গডফ্রে ক্রিপস.jpg
১৮৯৪ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে গডফ্রে ক্রিপস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামগডফ্রে ক্রিপস
জন্ম(১৮৬৫-১০-১৯)১৯ অক্টোবর ১৮৬৫
মুসৌরী, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু২৭ জুলাই ১৯৪৩(1943-07-27) (বয়স ৭৭)
অ্যাডিলেড, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ১৫)
১৯ মার্চ ১৮৯২ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা
রানের সংখ্যা ২১ ২১৭
ব্যাটিং গড় ১০.৫০ ৩১.০০
১০০/৫০ ০/০ ১/০
সর্বোচ্চ রান ১৮ ১০২
বল করেছে ১৫ ৬৫
উইকেট
বোলিং গড় ৫৯.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ১/১৮
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/০ ৪/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে বোলিং করতেন তিনি।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটসম্পাদনা

ব্রিটিশ ভারতে জন্মগ্রহণ করেন। এরপর চেল্টেনহাম কলেজে পড়াশুনো করেছিলেন তিনি। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে চারটিমাত্র প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছিলেন। সবগুলোই দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ছিল। মাঝারিসারিতে ডানহাতে ব্যাটিংয়ে নামতেন। ১৮৯১-৯২ মৌসুম থেকে ১৮৯৩-৯৪ মৌসুম পর্যন্ত গডফ্রে ক্রিপসের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ডানহাতে দর্শনীয় ভঙ্গীমায় ব্যাটিং করতেন গডফ্রে ক্রিপস। ১৯৯২-৯৩ মৌসুমে ৩৯.২০ গড়ে রান তুলেন। একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণের এক বছর পর প্রথম প্রচেষ্টায় ওয়েস্টার্ন প্রভিন্স দল কারি কাপের শিরোপা জয় করে।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার এক মৌসুম পর ক্রিপস ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের সদস্যরূপে দুইটি খেলায় অংশগ্রহণ করেন। তন্মধ্যে, দ্বিতীয় খেলায় গ্রিকুয়াল্যান্ড ওয়েস্টের বিপক্ষে মনোরম সেঞ্চুরি করেন। নিজস্ব সর্বশেষ প্রথম-শ্রেণীর খেলাটি ১৮৯৩-৯৪ মৌসুমে কারি কাপের চূড়ান্ত খেলায় নাটাল দলের বিপক্ষে খেলেন। দুইদিনের মধ্যেই তার দল জয় পায়।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটসম্পাদনা

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন গডফ্রে ক্রিপস। ১৯ মার্চ, ১৮৯২ তারিখে কেপ টাউনে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। এরপর আর তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

প্রথমবারের মতো প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলাটি ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট দলের পক্ষে। ঐ খেলায় ওয়াল্টার রিডের নেতৃত্বাধীন সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে তার দল পরাভূত হয়। দলটিতে অস্ট্রেলীয় খেলোয়াড় - বিলি মারডকজন ফেরিসের অংশগ্রহণ ছিল।[২] চারজন দক্ষিণ আফ্রিকানের একজন হিসেবে টেস্ট খেলার মাধ্যমে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক পর্ব সম্পন্ন করেছিলেন গডফ্রে ক্রিপস। কেপ টাউনের ঐ টেস্টে তিনি ১৮ ও ৩ রান তুলেন।

১৮৯৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা দল ইংল্যান্ড গমন করে। এ সফরে দলের সহঃ অধিনায়কের মর্যাদা লাভ করেন। তবে, এ সফরের কোন খেলাই প্রথম-শ্রেণীর ছিল না। এ সফরে ১৪.৫৯ গড়ে ৩৯৪ রান সংগ্রহ করতে পেরেছিলেন।

ব্যক্তিগত জীবনসম্পাদনা

২৭ জুলাই, ১৯৪৩ তারিখে ৭৭ বছর বয়সে অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেড এলাকায় গডফ্রে ক্রিপসের দেহাবসান ঘটে। অ্যাডিলেড এডভার্টাইজারে তার শোক সংবাদে লেখা হয় যে, গডফ্রে ক্রিপস ব্রিটিশ ক্যাবিনেট মিনিস্টার স্যার স্টাফোর্ড ক্রিপসের কাকাতো ভাই ছিলেন ও মৃত্যুর ৩০ বছর পূর্বে অস্ট্রেলিয়ায় আসার পূর্বে কেপ উপনিবেশে ডেপুটি শেরিফ হন।[৩]

অ্যাডিলেডের পার্শ্ববর্তী এলাকা ওয়াটল পার্কের সিম্পসন রোডে বসবাস করতেন। সেখানে তিনি বিদ্যালয় শিক্ষক ছিলেন। শুরুতে কুইন্সল্যান্ড ও পরবর্তীতে অ্যাডিলেডের সেন্ট পিটার্স কলেজে মৃত্যুর ১০ বছর পূর্বে অবস্থান করতেন।[৩]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Godfrey Cripps"। cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২ এপ্রিল ২০১২ 
  2. "Only Test, England tour of South Africa at Cape Town, Mar 19–22 1892"। ESPNcricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৮ নভেম্বর ২০১৮ 
  3. "Death of Mr. Godfrey Cripps"The Advertiser। Adelaide। ২৯ জুলাই ১৯৪৩। পৃষ্ঠা 2। সংগ্রহের তারিখ ২ এপ্রিল ২০১২ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা