গঙ্গা মৈয়া তোহে পিয়রী চঢ়ৈবো

১৯৬৩-এর ভোজপুরী চলচ্চিত্র

গঙ্গা মৈয়া তোহে পিয়রী চঢ়ৈবো কুন্দন কুমার পরিচালিত ১৯৬৩ খ্রিস্টাব্দে মুক্তিপ্রাপ্ত একটি ভোজপুরী চলচ্চিত্র। এটি ভোজপুরী ভাষায় নির্মিত সর্বপ্রথম চলচ্চিত্র এবং এতে অভিনয় করেন কুমকুম, অশীম কুমার, ও নাজির হুসেন। চলচ্চিত্রটিতে সঙ্গীত প্রদান করেন চিত্রগুপ্ত শ্রীবাস্তব, গীত রচনা করেন শৈলেন্দ্র এবং লতা মঙ্গেশকরমহম্মদ রফি নেপথ্য গায়ক ছিলেন।

গঙ্গা মৈয়া তোহে পিয়রী চঢ়ৈবো
गंगा मैया तोहे पियरी चढ़ैबो
পরিচালককুন্দন কুমার
প্রযোজকবিশ্বনাথ প্রসাদ শাহাবাদী
চিত্রনাট্যকারনাজির হুসেন
কাহিনিকারনাজির হুসেন
শ্রেষ্ঠাংশেকুমকুম
অশীম কুমার
নাজির হুসেন
তিওয়ারি
সুরকারচিত্রগুপ্ত
শৈলেন্দ্র
চিত্রগ্রাহকআর. কে. পণ্ডিত
সম্পাদককমলাকার
মুক্তি
  • ২২ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৩ (1963-02-22) (পাটনা)
দৈর্ঘ্য১২০ মিনিট
দেশভারত
ভাষাভোজপুরী
নির্মাণব্যয় ৫০০,০০০

গঙ্গা মৈয়া তোহে পিয়রী চঢ়ৈবো ১৯৬৩ খ্রিস্টাব্দের ২২শে ফেব্রুয়ারি পাটনার, বীনা সিনেমায় মুক্তি পায়। চলচ্চিত্রটি কুন্দন কুমার পরিচালনা করেন এবং বিশ্বনাথ প্রসাদ শাহাবাদী প্রযোজনা করেন, যিনি ভারতের প্রথম রাষ্ট্রপতি ডঃ রাজেন্দ্র প্রসাদের পরিচিত ছিলেন। চলচ্চিত্রটির প্রাথমিক নির্মাণব্যয় ₹১৫০,০০০ ধরা হলেও নির্মাণকাজ শেষ করতে প্রায় ৫০০,০০০ টাকা খরচ হয়। মুক্তির পূর্বে রাজেন্দ্র প্রসাদের জন্য পাটনার সদাকত আশ্রমে বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছিল।[১][২]

চলচ্চিত্রটি মূলত বিধবা পুনর্বিবাহ ভিত্তিক কাহিনীচিত্র।

কুশীলবসম্পাদনা

গীতমালাসম্পাদনা

গঙ্গা মৈয়া তোহে পিয়রী চঢ়ৈবোতে সঙ্গীত প্রদান করেন চিত্রগুপ্ত শ্রীবাস্তব ও গান রচনা করেন শৈলেন্দ্রদাস কেশরীলাল[৩]

  • "গঙ্গা মৈয়া তোহে পিয়রী চঢ়ৈবো" - লতা মঙ্গেশকর, ঊষা মঙ্গেশকর
  • "সোনওয়া কে পিঞ্জিরা মেঁ" - মহম্মদ রফি
  • "মোরে কারেজওয়া মেঁ পির " - লতা মঙ্গেশকর, ঊষা মঙ্গেশকর
  • "কাহে বঁসুরিয়া বাজাওলে" (আনন্দময়) - লতা মঙ্গেশকর
  • "অব তো লাগাত মোরা সোলওয়া সাল" - সুমন কল্যাণপুর
  • "লুক চুক বদরা" - লতা মঙ্গেশকর
  • "কাহে বঁসুরিয়া বাজাওলে" (বিষণ্ণতাময়) - লতা মঙ্গেশকর

মুক্তি ও অভ্যর্থনাসম্পাদনা

ভোজপুরী ফিল্ম সমারোহ সমিতি কর্তৃক ২৭ এপ্রিল ১৯৬৫ খৃস্টাব্দে প্রথম ভোজপুরী চলচ্চিত্র পুরস্কারের আয়োজন করা হয়, কলিকাতার আনন্দবাজার পত্রিকা ভবনে। এতে গঙ্গা মৈয়া তোহে পিয়রী চঢ়ৈবো চলচ্চিত্রটি কয়েকটি পুরস্কার জয় করে, যার মধ্যে, শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী (কুমকুম), শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব-অভিনেতা (নাজির হুসেন), শ্রেষ্ঠ গান (শৈলেন্দ্র), শ্রেষ্ঠ কাহিনী (নাজির হুসেন), এবং শ্রেষ্ঠ নেপথ্য গায়ক - পুরুষ (মহম্মদ রফি- " সোনওয়া কে পিঞ্জরে মেঁ")।[৪]

কিংবদন্তিসম্পাদনা

২০১১ খ্রিস্টাব্দে ৯৯তম বিহার দিবস উদযাপন উপলক্ষে চলচ্চিত্রটি প্রদর্শন করা হয়।[৫][৬]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "First Bhojpuri Film To Be Screened During Bihar Divas" (ইংরেজি ভাষায়)। NDTV/Indo-Asian News Service। ১৭ মার্চ ২০১১। ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  2. Kapoor, Jaskiran (২৩ ডিসেম্বর ২০০৯)। "Such a long journey"The Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  3. "Ganga Maiya Tohe Piyari Chadhaibo Songs" (ইংরেজি ভাষায়)। gaana.com। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ 
  4. অভিজিৎ ঘোষ (২২ মে ২০১০)। সিনেমা ভোজপুরী (Cinema Bhojpuri)। পেঙ্গুইন বুকস লিমিটেড। পৃষ্ঠা 46–। আইএসবিএন 978-81-8475-256-4 
  5. "Strong at 50, Bhojpuri cinema celebrates" (ইংরেজি ভাষায়)। Indian Express। ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮। 
  6. "First Bhojpuri Film To Be Screened During Bihar Divas" (ইংরেজি ভাষায়)। NDTV Movies। ১৭ মার্চ ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা