গগনের থালে রবি চন্দ্র দীপক জ্বলে

গগনের থালে রবি চন্দ্র দীপক জ্বলে একটি রবীন্দ্রসংগীত। এটিই রবীন্দ্রনাথের প্রথম গান বলে অনুমিত হয়। কবির ১৩ বছর বয়সের রচনা। ২৩ জানুয়ারি, ১৮৭৫ তারিখে (ফাল্গুন, ১২৮১ বঙ্গাব্দ)মাঘোৎসব উপলক্ষে এই গানটি প্রথম গীত হয়।

গানটি একটি ব্রহ্মসংগীতগুরু নানক রচিত প্রসিদ্ধ ভজন গগনো মে থাল রবিচন্দ্র দীপক বনে গানটির প্রথমাংশের অনুবাদ। কোনও কোনও গবেষক এই গানটি জ্যোতিরিন্দ্রনাথ ঠাকুর কর্তৃক রচিত বলে মনে করেন।

গানটি রবিচ্ছায়াপূজা ও প্রার্থনা সঙ্গীত সংকলনে সংকলিত হয়। গীতবিতান তৃতীয় খণ্ডের অন্তর্ভুক্ত। দেশ রাগ ও ঝাঁপতালে নিবদ্ধ গান। দেবব্রত বিশ্বাস গানটির রেকর্ড করেছিলেন।

রচনার ইতিহাসসম্পাদনা

মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুরের আত্মজীবনী থেকে জানা যায়, ১৮৫৭ সালে প্রথম অমৃতসরে এই গানটি শোনেন মহর্ষি। অনুমিত হয় ১৮৭৩ সালে উপনয়নের পর পিতার সঙ্গে অমৃতসর ভ্রমণকালে রবীন্দ্রনাথ স্বর্ণমন্দিরে এই শুনে বঙ্গানুবাদ করে থাকবেন। [১] ১৮৭৫ সালে জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়িতে মাঘোৎসব কালে এই গানটি প্রথম সর্বসমক্ষে গীত হয়েছিল। সেই হিসাবে এই গানটিই রবীন্দ্রনাথের প্রথম প্রকাশিত গান। গানটি প্রথম কে গেয়েছিলেন তার কোনও তথ্য সেই সময় তত্ত্ববোধিনী পত্রিকায় প্রকাশিত হয়নি।

যদিও এই গানটি রবীন্দ্রনাথ না দেবেন্দ্রনাথের রচনা তা নিয়ে মতানৈক্য আছে। তবে গবেষকদের অনুমান, গানটিতে দেবেন্দ্রনাথ সুরারোপ করলেও গানটি রবীন্দ্রনাথ কর্তৃকই অনূদিত হয়েছিল।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  • গীতবিতান (তৃতীয় খণ্ড), রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বিশ্বভারতী গ্রন্থনবিভাগ, কলকাতা, পৌষ ১৩৮১ সংস্করণ
  • গীতবিতান আর্কাইভ (তথ্যভিত্তিক সংগীতসমৃদ্ধ সফটওয়্যার), সংকলন, সংগ্রহ ও বিন্যাস : ড. পূর্ণেন্দুবিকাশ সরকার, ডিভিডি রম, সংখ্যা ডি ৪২০০১, সারেগামা ইন্ডিয়া লিমিটেড, ২০০৫
  • গানের পিছনে রবীন্দ্রনাথ, সমীর সেনগুপ্ত, প্যাপিরাস, ২০০৮

পাদটীকাসম্পাদনা

  1. গানের পিছনে রবীন্দ্রনাথ, সমীর সেনগুপ্ত, প্যাপিরাস, ২০০৮, পৃ. ২৭