প্রধান মেনু খুলুন

খগেন্দ্রনাথ মিত্র

বাঙালি শিশুসাহিত্যিক

খগেন্দ্রনাথ মিত্র (২ জানুয়ারি, ১৮৯৬ - ১২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭৮) একজন বিখ্যাত বাঙালি শিশুসাহিত্যিক ও প্রথম জীবনে বিপ্লবী রাজনৈতিক কর্মী ছিলেন।

খগেন্দ্রনাথ মিত্র
জন্ম(১৮৯৬ -০১-০২)২ জানুয়ারি ১৮৯৬
কলকাতা
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাশিশুসাহিত্যিক
আন্দোলনভারতের স্বাধীনতা আন্দোলন

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

কলকাতার নীলমণি মিত্র স্ট্রীটের মিত্র পরিবারে তার জন্ম হয়। তার পিতা শৈলেন্দ্রনাথ শিলাইদহতে ঠাকুর এস্টেটের মোক্তার ছিলেন। তার শৈশব কাটে পিতার কর্মক্ষেত্র অবিভক্ত নদীয়াকুষ্টিয়ায়। ছোটবেলাতে খেলাধুলা ও অভিনয়ে পারদর্শী ছিলেন।

স্বদেশী আন্দোলনসম্পাদনা

যৌবনে বিপ্লবী বাঘা যতীনের অনুগামী হন ও বিপ্লবী সন্ত্রাসবাদী আন্দোলনে যোগ দেন। মহাত্মা গান্ধীঅসহযোগ আন্দোলনে অনুপ্রাণিত হয়ে কলেজ পরিত্যাগ করেন। ১৯২০ সালে দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ প্রতিষ্ঠিত জাতীয় বিদ্যালয় থেকে স্নাতক হন। জাতীয়তাবাদী আন্দোলনে অংশগ্রহণ করে কারাবরন করেছেন। পরবর্তী কালে বামপন্থী রাজনীতিতে যুক্ত হয়েছিলেন।[১]

সাহিত্যসম্পাদনা

রেলের চাকরি ছেড়ে দিয়ে সর্বক্ষনের জন্যে সাহিত্য সাধনায় ব্রতী হন খগেন্দ্রনাথ মিত্র। সাহিত্য সাপ্তাহিক 'বাঁশরী', ভারতবর্ষ, প্রবাসী (পত্রিকা), মহিলা, পঞ্চপুষ্প ইত্যাদি বহু পত্র পত্রিকায় নিয়মিত লিখতে থাকেন। আর.এম. ব্যালেন্টাইনের বিখ্যাত বই ‘গোরিলা হান্টার’ অবলম্বনে লেখেন ‘আফ্রিকার জঙ্গলে’ যা প্রকাশিত হয় ১৯২৩-২৩ খৃষ্ঠাব্দে। বিখ্যাত রচনা ভোম্বল সর্দার ছাড়াও ডাকাত অমনিবাস, পাতালপুরীর কাহিনী, অতীতের পৃথিবী, আবিষ্কারের কাহিনী, ঝিলে জংগলে, বাংলার ডাকাত, রবীন্দ্র শিশুপরিক্রমা ইত্যাদি শতাধিক বই শিশু কিশোরদের কাছে জনপ্রিয় হয়। ১৯৪৮ সালে দৈনিক পত্রিকা 'কিশোর' তার সম্পাদনায় বের হয়। এছাটা তিনি সম্পাদনা করেন 'নতুন মানুষ', 'ছোটদের মহল', সপ্তডিঙ্গা, বার্ষিক শিশুসাথী, 'মানিকমালা' ইত্যাদি পত্রিকা। 'শতাব্দীর শিশুসাহিত্য ১৮১৮-১৯৬০' বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে একটি উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ। তার রচিত ভোম্বল সর্দার হিন্দি ও রুশ ভাষায় অনূদিত হয়েছিল। তিনি অনুবাদ করেছেন 'বেন হুর’, ‘লাস্ট ডেজ অফ পম্পেই’, ‘ব্ল্যাক অ্যারো’র মমত বিশ্বসাহিত্য। বড়দের জন্যে লিখেছেন 'গড় জঙ্গলের কাহিনী’, ‘ঠাকুরদার বুনো গল্প’, ‘ডাকাতের ডুলি’, ‘গণেশচন্দ্রের অশুভ যাত্রা’ ইত্যাদি।[১][২]

সম্মাননাসম্পাদনা

সাহিত্য কীর্তির জন্যে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভুবনেশ্বরী পদক ও মৌচাক সাহিত্য পুরষ্কার পান। এছাড়া পান গিরীশ রৌপ্যপদক। ১৯৭৫ সালে জাতীয় পুরষ্কারে সম্মানিত হন কিন্তু শিশুসাহিত্যের জন্যে পাঁচ হাজার থেকে কমিয়ে পুরষ্কার মূল্য এক হাজার টাকা বরাদ্দ করা হলে তিনি এই অবমাননার প্রতিবাদস্বরূপ তা প্রত্যাখ্যান করেন।[১]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. সুবোধচন্দ্র সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু, প্রথম খন্ড (২০০২)। সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান। কলকাতা: সাহিত্য সংসদ। পৃষ্ঠা ১২৩। 
  2. খগেন্দ্রনাথ মিত্র, ১ম খণ্ড। ভোম্বল সর্দার। কলকাতা: শিশুসাহিত্য সংসদ।