কৃষ্ণ মন্দির, রাওয়ালপিন্ডি

পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে অবস্থিত একটি হিন্দু মন্দির

শ্রী‌ কৃষ্ণ মন্দির অথবা কৃষ্ণ মন্দির রাওয়ালপিন্ডির একমাত্র সক্রিয় মন্দির যেখানে পূজা-অর্চনা পালিত হয়। মন্দিরটি পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের রাওয়ালপিন্ডির সাদ্দারে কাবারি বাজার ও রাওয়ালপিন্ডি রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যে অবস্থিত। রাওয়ালপিন্ডিইসলামাবাদে বসবাসকারী হিন্দুদের একমাত্র উপাসনার পীঠস্থান হল এই মন্দির[১] হিন্দু উৎসবের মধ্যে হোলি,[২] দীপাবলি [৩] ইত্যাদি উদযাপিত হয়।

শ্রীকৃষ্ণ মন্দির, রাওয়ালপিন্ডি
Shikara of Shri Krishna Mandir Rawalpindi.jpg
রাওয়ালপিন্ডির শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের শিখর
ধর্ম
অন্তর্ভুক্তিহিন্দুধর্ম
জেলারাওয়ালপিন্ডি জেলা
ঈশ্বরকৃষ্ণ
উৎসবসমূহজন্মাষ্টমী, দীপাবলি, হোলি
অবস্থান
অবস্থানরাওয়ালপিন্ডি
রাজ্যপাঞ্জাব, পাকিস্তান
দেশপাকিস্তান পাকিস্তান
ভৌগোলিক স্থানাঙ্ক৩৩°৩৫′২৯.১২৫″ উত্তর ৭৩°৩′১২.৬৪৩″ পূর্ব / ৩৩.৫৯১৪২৩৬১° উত্তর ৭৩.০৫৩৫১১৯৪° পূর্ব / 33.59142361; 73.05351194
স্থাপত্য
ধরনহিন্দু মন্দির

ইতিহাসসম্পাদনা

 
১৮৯৭ সালে কঞ্জি মাল ও উজগার মাল রাম মন্দিরটি নির্মাণ করে

১৮৯৭ সালে কঞ্জি মাল ও উজগার মাল রাম রাচপাল পাশ্ববর্তী অঞ্চলের হিন্দুদের উপাসনালয় রূপে মন্দিরটি নির্মাণ করেন। দেশভাগের সময়, ১৯৪৭ সালে মন্দিরটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। দেশভাগের পর যেসমস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ পাকিস্তানেই থাকতে চেয়েছিলেন, তাদের দ্বারা গঠিত একটি হিন্দু পঞ্চায়েতকে ১৯৪৯ সালে মন্দিরটির দায়িত্ব দেওয়া হয় এবং তারপর থেকে রাওয়ালপিন্ডির হিন্দুদের জন্য এটি প্রধান উপাসনালয় হয়ে ওঠে।

১৯৭০ সালে, ইভাকুই ট্রাস্ট প্রোপার্টি বোর্ড (ETPB),[১] স্থানীয় ব্যবসায়ীদের জন্য মন্দিরের আশেপাশের এলাকাটিকে বরাদ্দ করে। হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা মন্দির চত্বর এভাবে অধিকার করে রাখার জন্য প্রতিবাদ করে চলেছে। [৪]

পুনঃসংস্কারসম্পাদনা

২০১৮ সালে, পাঞ্জাব সরকার মন্দিরটির পুনঃসংস্কারের জন্য ২০ মিলিয়ন রুপি অর্থ বরাদ্দ করে।[৪] এবং এই পুনঃসংস্কার ও পুনরুদ্ধার ২০২০ সালে সম্পূর্ণ হয়েছে।[৫]

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Aamir Yasin (৮ মার্চ ২০২০)। "Krishna Temple- the only worship place for twin cities' Hindus"Dawn। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২০ 
  2. Aamir Yasin (২৫ মার্চ ২০১৯)। "Krishna Mandir comes alive as Hindus celebrate Holi, Pakistan Day"Dawn। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২০ 
  3. Aamir Yasin (২ নভেম্বর ২০১৬)। "Krishna Mandir lights up on Diwali"। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২০ 
  4. Aamir Yasin (২০ মে ২০১৮)। "Rs20m released to renovate Krishna Mandir Aamir Yasin"Dawn। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২০ 
  5. Asif Mehmood (২০ মে ২০২০)। "Religious sites: Restoration of Sikh and Hindu temples to expedite after lockdown"Express Tribune। সংগ্রহের তারিখ ২১ আগস্ট ২০২০ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা