কৃষ্ণকুমার চৌধুরী

ভারত উপমহাদেশের ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন অন্যতম ব্যক্তিত্ব

কৃষ্ণকুমার চৌধুরী (বা কৃষ্ণগোপাল চৌধুরী (আনু. ১৯১৮ - ৫ জুন, ১৯৩৪) ছিলেন ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন ব্যক্তিত্ব ও অগ্নিযুগের শহীদ বিপ্লবী। ১৯৩৩ সালে মাস্টারদা সূর্যসেন এবং তারকেশ্বর দস্তিদারের মৃত্যুদণ্ডের প্রতিশোধ গ্রহণের জন্য চট্টগ্রাম যুব বিপ্লবী দলের চার জন সদস্য ইউরোপীয় ক্লাব (পল্টন) মাঠে ইংরেজদের ক্রিকেট খেলার সময় ৭ জানুয়ারি, ১৯৩৪ তারিখে বোমা ও রিভলভারের সাহায্যে কয়েকজন অফিসারকে আক্রমণ করেন।[১] এতে পুলিস সুপার পিটার ক্লিয়ারি নিহত হয় এবং কয়েকজন শ্বেতাঙ্গ আহত হন। মিলিটারির পাল্টা আক্রমণে ঘটনাস্থলে নিত্যরঞ্জন সেন এবং হিমাংশুবিমল চক্রবর্তী নিহত হন। কৃষ্ণকুমার চৌধুরী এবং হরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী গ্রেপ্তার হন।[২] বিচারে দুজনেরই ফাঁসি হয়। ১৯৩৪ সনের ৫ ই জুন তারা মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে ফাঁসিতে মৃত্যুবরণ করেন।[২][৩]

কৃষ্ণকুমার চৌধুরী
বীর বিপ্লবী কৃষ্ণকুমার চৌধুরী
জন্ম১৯১৮
মৃত্যু৫ জুন, ১৯৩৪
জাতীয়তাব্রিটিশ ভারতীয়
নাগরিকত্বব্রিটিশ ভারত
পরিচিতির কারণচট্টগ্রামের অস্ত্রগার আক্রমণের ব্যক্তি
রাজনৈতিক দলঅনুশীলন সমিতি
আন্দোলনভারতের বিপ্লবী স্বাধীনতা আন্দোলন

জন্ম সম্পাদনা

কৃষ্ণকুমার চৌধুরীর (বা কৃষ্ণগোপাল চৌধুরী) জন্ম চট্টগ্রামের [৩]কেলিশহরে। পিতা হেমেন্দ্রলাল চৌধুরী। [৪]

তথ্যসূত্র সম্পাদনা

  1. রায়, প্রকাশ (২০২১)। বিস্মৃত বিপ্লবীচেন্নাই: নোশনপ্ৰেস, চেন্নাই, তামিলনাড়ু। 
  2. সুবোধ সেনগুপ্ত ও অঞ্জলি বসু সম্পাদিত, সংসদ বাঙালি চরিতাভিধান, প্রথম খণ্ড, সাহিত্য সংসদ, কলকাতা, নভেম্বর ২০১৩, পৃষ্ঠা ৩৫৭, ৮৬৪, আইএসবিএন ৯৭৮-৮১-৭৯৫৫-১৩৫-৬
  3. ত্রৈলোক্যনাথ চক্রবর্তী, জেলে ত্রিশ বছর, পাক-ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম, ধ্রুপদ সাহিত্যাঙ্গন, ঢাকা, ঢাকা বইমেলা ২০০৪, পৃষ্ঠা ১৯৩।
  4. P N Chopra। Who's who of Indian Martyrs Vol.I। Publication Division, Ministry of Information & Broadcasting, GOI। পৃষ্ঠা 1878।