কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট

সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট।

কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট বাংলাদেশের একটি বৃহৎ কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এটি একটি সরকারী শিক্ষালয়। এখানে সাতটি শাখায় ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু রয়েছে এটি হাতে-কলমে কাজ শেখার উপযুক্ত কর্মশালা। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানে চার বছর অধ্যয়ন শেষে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।[১]

কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট
Kushtia Polytechnique Institute.JPG
কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের প্রধান দরজা
ধরনসরকারী
স্থাপিত১৯৬৪
অধ্যক্ষপ্রকৌশলী ড.নুরুল হক
শিক্ষার্থী২৩০০
অবস্থান,
২৩°৫৪′০৬″ উত্তর ৮৯°০৮′০২″ পূর্ব / ২৩.৯০১৭২৫° উত্তর ৮৯.১৩৪০১৩° পূর্ব / 23.901725; 89.134013স্থানাঙ্ক: ২৩°৫৪′০৬″ উত্তর ৮৯°০৮′০২″ পূর্ব / ২৩.৯০১৭২৫° উত্তর ৮৯.১৩৪০১৩° পূর্ব / 23.901725; 89.134013
শিক্ষাঙ্গনশহুরে
সংক্ষিপ্ত নামপলিটেকনিক কলেজ, কুষ্টিয়া।
ওয়েবসাইটkushtiapi.gov.bd

অবস্থানসম্পাদনা

এটি কুষ্টিয়া শহরের মাঝে কলেজ রোড এলাকায় অবস্থিত।

ইতিহাসসম্পাদনা

এটি ১৯৬৪ সালে খ্রিষ্টাব্দে সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।বর্তমানে ২৩০০ জন ছাত্র-ছাত্রী এবং চারটি টেকনোলজি (সিভিল, ইলেট্রিক্যাল, মেকানিক্যাল ও পাওয়ার) নিয়ে ডিপ্লোমা-ইন-ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্স চালু হয়। অত্র প্রতিষ্ঠানে চার বছর মেয়াদী এই কোর্সে ১১টি বিভাগ চলমান রয়েছে।[১]

ক্যাম্পাসসম্পাদনা

মূল ক্যাম্পাসে চারতলা বিশিষ্ট একটি ভবন, তিনটি বড় ওয়ার্কশপ ভবন, অফিস, লাইব্রেরী, ওয়ার্কশপ এবং ল্যবরেটরী এবং একটি ৫০০ ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন অডিটোরিয়াম। এছাড়া মূল ভবনের উত্তর পাশে রয়েছে মসজিদ সংলগ্ন শহীদ মিনার।

টেকনোলজিসম্পাদনা

একাডেমিক টেকনোলজি সমূহের মধ্যে রয়েছে

  1. কম্পিউটার
  2. ইলেকট্রনিক্স
  3. ইলেকট্রিক্যাল
  4. মেকানিক্যাল
  5. সিভিল
  6. পাওয়ার
  7. ইলেক্টো-মেডিক্যাল

ছাত্রাবাসসম্পাদনা

ছাত্রদের জন্য ২টি এবং ছাত্রীদের জন্য ১টি আবাসিক হল রয়েছে।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Welcome to Kushtia Polytechnic Institute, Kushtia"http://kushtiapi.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ৪ ডিসেম্বর ২০১৫  |প্রকাশক= এ বহিঃসংযোগ দেয়া (সাহায্য)

বহিঃসংযোগসম্পাদনা