কিমা হচ্ছে দক্ষিণ এশিয় দেশসমূহের একটি ঐতিহ্যবাহী খাবার। শব্দটি সম্ভব গ্রীক শব্দ κιμάς থেকে এসেছে যার অর্থ পেষা মাংস[১]। এটা সাধারনত ছাগল বা ভেড়ার মাংসের সাথে সিমের বিচি বা আলুর সাথে পেষা হয়। যে কোন মাংস থেকেই কিমা প্রস্তুত করা যায়। কিমাকে কাবাবেও রুপান্তরিত করা যায়। অনেক সময় সিঙাড়া, সামুসা বা নানের মধ্যে কিমা ব্যবহার করা হয়। একই ধরনের খাবার আর্মেনিয়ায় ঘিমা ղեյմա এবং তুরষ্কে কিইমা" kıyma নামে পরিচিত।

কিমা
Keema Pao with Hari Chutney.jpg
পাউরুটির মধ্যে কিমা
অন্যান্য নামকিমা, খিমা
প্রকারখাবার
উৎপত্তিস্থলবাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল
অঞ্চল বা রাজ্যদক্ষিণ এশিয়া
প্রধান উপকরণমাংস, শিম বা আলু
রন্ধনপ্রণালী: কিমা  মিডিয়া: কিমা

উপাদানসম্পাদনা

কিমার উপাদান হিসেবে ব্যবহার করা হয় পেষা মাংস, ঘি, পেঁয়াজ, হলুদ, আদা, মরিচ, মটরশুটি এবং মশলা ।

প্রস্তুতপ্রণালীসম্পাদনা

মাংসের কিমা প্রস্তত করার আগে কিমার জন্য সঠিক মাংস নির্বাচন করতে হবে। শুধু মাংস বেছে নিতে হবে। কোনো প্রকার হাড়, রগ অথবা চর্বি কিছু থাকবে না। থাকলে কেটে নিতে হবে। রানের মাংস ভালো হবে।

ব্লেন্ডারের সাহায্যে অথবা কিমা তৈরির যন্ত্রের সাহায্যে কিমা তৈরী করা যায়। কিমার মেশিন দিয়ে করলে খুব সুন্দর লম্বা লম্বা কিমা বের হয়।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Platts, John (১৮৮৪)। A Dictionary of Urdu, Classical Hindi, and English। London: W. H. Allen & Co। পৃষ্ঠা 797। আইএসবিএন 81-215-0098-2 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা