কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয়

কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয় (টেমপ্লেট:Lang-ks, উর্দু: کشمیر یونورسیٹی‎‎, হিন্দি: कश्मीर विश्वविद्यालय) হল ভারতের জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের শ্রীনগর শহরের একটি বিশ্ববিদ্যালয়। এটি ডাল হ্রদের পশ্চিম তীরে অবস্থিত।ন্যাশনাল অ্যাসেসমেন্ট অ্যান্ড অ্যাক্রেডিটেশন কাউন্সিল (ন্যাক) এই বিশ্ববিদ্যালয়টিকে "A" বা "ক" গ্রেড দিয়েছে।[১][২]

কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয়
دانشگاه کشمیر
کشمیر یونورسیٹی
নীতিবাক্যمن الظلمات إلى النور
तमसो मा ज्योर्तिगमय
"অন্ধকার হতে আলোয়"
ধরনরাজ্য বিশ্ববিদ্যালয়
স্থাপিত১৯৫৬
আচার্যনরিন্দর নাথ ভোরা
অবস্থান,
৩৪°০৭′৫৭″ উত্তর ৭৪°৫০′১৫″ পূর্ব / ৩৪.১৩২৫৫২° উত্তর ৭৪.৮৩৭৪৯৪° পূর্ব / 34.132552; 74.837494স্থানাঙ্ক: ৩৪°০৭′৫৭″ উত্তর ৭৪°৫০′১৫″ পূর্ব / ৩৪.১৩২৫৫২° উত্তর ৭৪.৮৩৭৪৯৪° পূর্ব / 34.132552; 74.837494
শিক্ষাঙ্গননগরাঞ্চলীয়
অধিভুক্তিবিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন, অ্যাসোশিয়েশন অফ ইন্ডিয়ান ইউনিভার্সিটিজ
ওয়েবসাইটwww.kashmiruniversity.net

শিক্ষাপ্রাঙ্গনসম্পাদনা

প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান হজরতবাল ও পার্শ্ববর্তী অমর সিং বাগ, নাসিম বাগ ও মির্জা বাগ অঞ্চলে। এই শিক্ষাপ্রাঙ্গনের আয়তন ২৬৩ একর (১.০৬ কিমি)।[৩]

অমর সিং ভাগ ও নাসিম বাগের একটি বড়ো অংশ নিয়ে হজরতবাল শিক্ষাপ্রাঙ্গনটি গঠিত। এটি ডাল হ্রদের উত্তর-পূর্ব পাড়ে অবস্থিত।। আগে অনেকগুলি স্নাতকোত্তর বিভাগ, গবেষণা ও অন্যান্য কেন্দ্র নাসিম বাগে অবস্থিত ছিল। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নাসিম বাগকে একটি ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে গড়ে তুলতে চান বলে, অনেক বিভাগ পরে হজরতবাল শিক্ষাপ্রাঙ্গনে স্থানান্তরিত হয়ে গিয়েছে।[৩] ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসের হিসেব অনুসারে, হজরতবাল শিক্ষাপ্রাঙ্গনের কাছে জাকুরা শিক্ষাপ্রাঙ্গন গড়ে তোলা হচ্ছে। এই শিক্ষাপ্রাঙ্গনে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেকগুলি বিভাগ স্থানান্তরিত হয়ে যাবে।[৪]

মির্জা বাগ বা "বিশ্ববিদ্যালয় নগরী" অঞ্চলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীদের বসবাসের ব্যবস্থা আছে।[৩]

অনন্তনাগের ফতেগড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ শিক্ষাপ্রাঙ্গন অবস্থিত। এটি চালু হয়েছে ২০০৮ সালের অক্টোবর মাসে।[৫] ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে বারামুল্লার ডেলিনায় চালু হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তর শিক্ষাপ্রাঙ্গন।[৫] কুপওয়াড়া, কার্গিল আর লেহতে আরও তিনটি শিক্ষাপ্রাঙ্গন তৈরি হচ্ছে।[৬][৭]

গ্রন্থাগারসম্পাদনা

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে ৬,৪৫,০১৮টি বই আছে।[৮] এই গ্রন্থাগারের পোষাকি নাম "আল্লামা ইকবাল লাইব্রেরি"। বই ছাড়াও এখানে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন পত্রপত্রিকা রাখা হয়।[৯]

অনুষদ ও বিভাগসমূহসম্পাদনা

  • কলা অনুষদ
    • আরবি বিভাগ
    • বাংলা বিভাগ
    • উর্দু বিভাগ
    • ইংরেজি বিভাগ
    • কাশ্মীরি বিভাগ
    • বৈদেশিক ভাষা বিভাগ
    • গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান বিভাগ
    • ভাষাতত্ত্ব বিভাগ
    • পারসি বিভাগ
    • সংস্কৃত বিভাগ
    • হিন্দি বিভাগ
  • সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ
    • অর্থনীতি বিভাগ
    • ইতিহাস বিভাগ
    • শাহ-ই-হামদাম বিভাগ(এ.আর) ইনস্টিটিউট অফ ইসলামিক স্টাডিজ
    • মিডিয়া এডুকেশন রিসার্চ সেন্টার (এমইআরসি)
    • রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ
    • সমাজতত্ত্ব ও সমাজসেবা বিভাগ
    • মনস্তত্ত্ব বিভাগ
    • দর্শন বিভাগ
    • গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান বিভাগ
  • ব্যবসা, অর্থনীতি গবেষণা ও ব্যবস্থাপন অনুষদ
    • ব্যবসা, অর্থনীতি গবেষণাবিভাগ (পূর্বনাম বাণিজ্য বিভাগ)
    • বিজনেস স্কুল
  • শিক্ষা অনুষদ
    • শিক্ষা বিভাগ
    • শারীরশিক্ষা বিভাগ
  • ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ
  • আইন অনুষদ
    • আইন বিভাগ
  • সংগীত ও চারুকলা অনুষদ
  • প্রাচ্যবিদ্যা অনুষদ
  • জীববিজ্ঞান অনুষদ
    • উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ
    • জৈবরসায়ন বিভাগ
    • প্রাণিবিজ্ঞান বিভাগ
    • জৈবপ্রযুক্তি বিভাগ
    • ক্লিনিক্যাল জৈবরসায়ণ বিভাগ
  • পদার্থ বিজ্ঞান অনুষদ
    • রসায়ণ বিভাগ
    • পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগ
    • ভূতত্ত্ব ও ভূপদার্থবিজ্ঞান বিভাগ
    • গণিত বিভাগ
    • পদার্থবিজ্ঞান বিভাগ
    • পরিসংখ্যান বিভাগ
    • ভূগোল ও আঞ্চলিক উন্নয়ন বিভাগ
  • ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদ
    • ইলেকট্রনিকস ও ইনস্ট্রুমেন্টেশন বিভাগ
    • ইনস্টিটিউট অফ হোম সায়েন্স
    • ফার্মাকিউটিক্যাল সায়েন্স
    • কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগ
    • খাদ্যবিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগ
    • তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ ( বর্তমানে আইটিঅ্যান্ডএসএস-এর অধীনস্থ)
  • কেন্দ্র
    • শারীরশিক্ষা ও ক্রীড়া অধিকরণ
    • দূরশিক্ষা অধিকরণ
    • আজীবন শিক্ষা অধিকরণ
    • তথ্যপ্রযুক্তি ও সাপোর্ট সিস্টেম অধিকরণ (আইটিঅ্যান্ডএসএস)
    • ডাইরেক্টরয়েট অফ ইন্টারন্যাল কোয়ালিটি অ্যাসিওরেন্স (ডিআইকিউএ)
    • ডাইরেক্টরয়েট অফ ওয়াচ অ্যান্ড ওয়ার্ড
    • স্বাস্থ্য ও পরিবেশ রক্ষা অধিকরণ
    • ডাইরেক্টরয়েট অফ কনভোকেশন কমপ্লেক্স
    • মধ্য এশিয়া চর্চা কেন্দ্র
    • উন্নয়ন গবেষণা কেন্দ্র
    • সেন্টার ফর এনার্জি স্টাডিজ
    • সেন্টার ফর বায়োডাইভার্সিটি অ্যান্ড ট্যাক্সোনমি
    • ইউনিভার্সিটি সায়েন্স অ্যান্ড ইনস্ট্রুমেন্টেশন সেন্টার
    • এডুকেশনাল মাল্টিমিডিয়া রিসার্চ সেন্টার
    • স্টেট রিসোর্স সেন্টার
    • পাবলিক রিলেশনস সেন্টার
    • সেন্টার ফর কেরিয়ার প্ল্যানিং অ্যান্ড কাউন্সেলিং
    • পপুলেশন রিসার্চ সেন্টার
    • আল্লামা ইকবাল ইনস্টিটিউট অফ কালচার অ্যান্ড ফিলোজফি
    • ইনস্টিটিউট অফ মিউজিক অ্যান্ড ফাইন আর্টস
    • রিজিওনাল স্টাডি সেন্টার

পাদটীকাসম্পাদনা

  1. Complete List of Accredited and Re-accredited Institutions list under New Methodology - CGPA System (PDF), National Assessment and Accreditation Council, ২০১১, পৃষ্ঠা 160, ১ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা, সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১২ 
  2. Accreditation status is valid for the following Institutions (PDF), National Assessment and Accreditation Council, ২০১১, পৃষ্ঠা 156, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা, সংগ্রহের তারিখ ১৬ জানুয়ারি ২০১২ 
  3. University of Kashmir, Official Website of। "About UoK"। University of Kashmir। ১ মে ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  4. "Omar inaugurates Girls Hostel, lays foundation of Boys Hostel at Kashmir University"। জুন ৩, ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. Shafi, Showkat (১৪ আগস্ট ২০১১)। "KU at your doorstep"Greater Kashmir। ১৬ আগস্ট ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  6. "KU to establish Kargil, Leh campuses soon"Greater Kashmir। ৯ আগস্ট ২০১১। ২ আগস্ট ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  7. "KU Kupwara campus on cards"Greater Kashmir। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  8. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৩০ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩ 
  9. "Allama Iqbal Library"। University of Kashmir। ৩০ এপ্রিল ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ এপ্রিল ২০১৩