কালীগঞ্জ উপজেলা, সাতক্ষীরা

সাতক্ষীরা জেলার একটি উপজেলা

কালিগঞ্জ বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার অন্তর্গত একটি প্রশাসনিক এলাকা।

কালিগঞ্জ
উপজেলা
কালিগঞ্জ বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
কালিগঞ্জ
কালিগঞ্জ
বাংলাদেশে কালীগঞ্জ উপজেলা, সাতক্ষীরার অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°২৭′১০″ উত্তর ৮৯°২′৩৫″ পূর্ব / ২২.৪৫২৭৮° উত্তর ৮৯.০৪৩০৬° পূর্ব / 22.45278; 89.04306স্থানাঙ্ক: ২২°২৭′১০″ উত্তর ৮৯°২′৩৫″ পূর্ব / ২২.৪৫২৭৮° উত্তর ৮৯.০৪৩০৬° পূর্ব / 22.45278; 89.04306 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগখুলনা বিভাগ
জেলাসাতক্ষীরা জেলা
আয়তন
 • মোট৩৩৩.৭৯ বর্গকিমি (১২৮.৮৮ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা [১]
 • মোট৩,২৫,৬৩৫
 • জনঘনত্ব৯৮০/বর্গকিমি (২,৫০০/বর্গমাইল)
সাক্ষরতার হার
 • মোট৪৭%
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)
প্রশাসনিক
বিভাগের কোড
৪০ ৮৭ ৪৭
ওয়েবসাইটপ্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

অবস্থানসম্পাদনা

উত্তরে দেবহাটা উপজেলা,দক্ষিণে শ্যামনগর উপজেলা,পূর্বে আশাশুনি উপজেলা, পশ্চিমে ভারত অবস্থিত।

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

কালিগঞ্জ উপজেলায় ১২টি ইউনিয়ন আছে।এর কোন পৌরসভা নেই। ইউনিয়ন সমূহ হচ্ছে -

ইতিহাসসম্পাদনা

কালীগঞ্জ এর কোন সঠিক ইতিহাস আজ পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। তবে এই এলাকার ইতিহাস সম্পর্কে সতীশ চন্দ্র মিত্রর একটি বইয়ের উপর নির্ভর করতে হয় যা যশোহর খুলনার ইতিহাসের উপর রচিত। এই গ্রন্থে নামকরণ বিষয়ে কালিগঞ্জকে একটি আধুনিক নাম হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে।রাজা প্রতানের পতনের পর বাজিতপর পরগনা নদীয়ার রাজার হস্তগত হয় বলে ‍‌উল্লেখ করা আছে। তারপর চাঁপড়ার রাজা কৃষ্ণরাম এই পরগনা খরিদ করেন(১৭০৫-১৭২৯)। পরবতীর্তে তা কালক্রমে কলিকাতার দর্পনারায়ন ঠাকুরের হস্তে যায়। তদ্ববংশীয় কানাইলাল ঠাকুর নারায়ন পুরে কালি প্রতিষ্টা করেন। উক্ত কালী থেকে কালক্রমে কালিগঞ্জ হয় বলে গ্রন্থে উল্লেখিত আছে। এই ইতিহাস ব্যতীত বাইরে আর কোন উৎস পাওয়া যায়নি।

মুক্তিযুদ্ধে কালীগঞ্জসম্পাদনা

মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন কালীগঞ্জ ৯নং সেক্টরের অধীনে ছিল। বসন্তপুর, খানজিয়া, পিরোজপুর, নাজিমগঞ্জ, দুদলি এবং উকশা এলাকাগুলোতে পাক-হানাদারদের সাথে মুক্তিবাহিনীর একাধিক সংঘর্ষ যংঘটিত হয়। ১৯৭১ সালের ২০ নভেম্বার কালীগঞ্জ শত্রুমুক্ত হয়।

জনসংখ্যার উপাত্তসম্পাদনা

কালিগঞ্জ এর মোট জনসংখ্যা ৩,২৫,৬৩৫জন।

শিক্ষাসম্পাদনা

এখানে বর্তমানে শিক্ষার হার শতকরা ৪৭ জন (১৫ বছরের উর্দ্ধে)|পুরুষ শতকরা ৫৪ জন এবং মহিলা শতকরা ৪১ জন।

উল্লেখযোগ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-

অর্থনীতিসম্পাদনা

লোনাপানির মাছমিঠা পানির মাছ উভয় প্রকার মাছের চাষকৃত ঘের চোখে পড়ে।

নদ-নদীসম্পাদনা

  1. ইছামতি নদী
  2. কাকশিয়ালী নদী
  3. কালিন্দী নদী
  4. যমুনা নদী

দর্শনীয় স্থানসম্পাদনা

  1. নলতা পাক রওজা শরীফ
  2. প্রবাজপুর শাহী মসজিদ
  3. ড্যামরাইল নবরত্ন মন্দির
  4. কালিগঞ্জ বিজ্র
  5. কালিগঞ্জ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর
  6. ছোট মিঞার দরবার শরীফ
  7. সাত্তার মোড়লের খামার বাড়ি
  8. দুই সতিনীর দীঘি
  9. মদিনা পীরের দরগা
  10. বিক্রম আদিত্যের দুর্গ
  11. প্রতাপাদিত্য এর বাগান

কৃতী ব্যক্তিত্বসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন (জুন ২০১৪)। "এক নজরে কালিগঞ্জ"। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার। সংগ্রহের তারিখ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা