কালিম্পং জেলা

পশ্চিমবঙ্গের একটি জেলা

কালিম্পং জেলা (নেপালি: कालिम्पोङ; তিব্বতি: ཀ་སྦུག) ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে অবস্থিত জলপাইগুড়ি বিভাগের একটি জেলানিম্ন হিমালয়-এ অবস্থিত। গড় উচ্চতা ১,২৫০ মিটার (৪,১০১ ফু)।[২] দার্জিলিং জেলার কালিম্পং মহকুমা ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ সালে পৃথক ভাবে কালিম্পং জেলা হিসাবে পরিচিত হয়। কালিম্পং জেলার সদর দপ্তর কালিম্পং শহরের উপকণ্ঠে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ২৭ মাউন্টেন ডিভিশন অবস্থিত।[৩]

কালিম্পং জেলা
कालेबुङ
জেলা
দূরবর্তী পাহাড় থেকে দেখা কালিম্পং জেলার সদর শহর কালিম্পং , পটভূমিতে হিমালয় পর্বত
দূরবর্তী পাহাড় থেকে দেখা কালিম্পং জেলার সদর শহর কালিম্পং , পটভূমিতে হিমালয় পর্বত
কালিম্পং জেলা পশ্চিমবঙ্গ-এ অবস্থিত
কালিম্পং জেলা
কালিম্পং জেলা
স্থানাঙ্ক: ২৭°০৪′ উত্তর ৮৮°২৮′ পূর্ব / ২৭.০৬° উত্তর ৮৮.৪৭° পূর্ব / 27.06; 88.47স্থানাঙ্ক: ২৭°০৪′ উত্তর ৮৮°২৮′ পূর্ব / ২৭.০৬° উত্তর ৮৮.৪৭° পূর্ব / 27.06; 88.47
রাষ্ট্রভারত
প্রদেশপশ্চিমবঙ্গ
সরকার
 • শাসককালিম্পং পৌরসভা
আয়তন
 • মোট১,০৫৬.৫ বর্গকিমি (৪০৭.৯ বর্গমাইল)
উচ্চতা১,২৪৭ মিটার (৪,০৯১ ফুট)
 • জনঘনত্ব৪০.৭০/বর্গকিমি (১০৫.৪/বর্গমাইল)
ভাষা
 • আঞ্চলিকনেপালি, তিব্বতি, ভূটিয়া, , শেরপা লেপচা, কিরান্তি
 • দাপ্তরিকনেপালি, বাংলা, ইংরেজি[১]
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+৫:৩০)
পিন৭৩৪ ৩০১
টেলিফোন কোড০৩৫৫২
যানবাহন নিবন্ধনডব্লিউ বি-৭৮, ৭৯
লোকসভা নির্বাচনী এলাকাদার্জিলিং
বিধানসভা নির্বাচনী এলাকাকালিম্পং

কালিম্পং-এর পরিচিতি রয়েছে শহরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য। এগুলির অধিকাংশ ব্রিটিশ আমলে স্থাপিত হয়।[৪] চীনের তিব্বত আগ্রাসন ও ভারত-চীন যুদ্ধের আগে পর্যন্ত এই শহর ছিল ভারত-তিব্বত বাণিজ্যদ্বার। ১৯৮০-র দশক থেকে কালিম্পং ও প্রতিবেশী দার্জিলিং পৃথক গোর্খাল্যান্ড রাজ্য আন্দোলনের প্রধান কেন্দ্র।

কালিম্পং তিস্তা নদীর ধারে একটি শৈলশিরার উপর অবস্থিত। মনোরম জলবায়ু ও সহজগম্যতা একে জনপ্রিয় পর্যটনকেন্দ্র করেছে। উদ্যানপালনে কালিম্পং বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। এখানে নানাপ্রকার অর্কিড দেখা যায়। এখানকার নার্সারিগুলিতে হিমালয়ের ফুল, স্ফীতকন্দ (tubers) ও রাইজোমের ফলন চলে। কালিম্পং-এর অর্থনীতিতে এই ফুলের বাজার বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ।[২] নেপালি, অন্যান্য আদিবাসী উপজাতি ও ভারতের নানা অংশ থেকে অভিনিবেশকারীরা শহরের প্রধান বাসিন্দা। কালিম্পং বৌদ্ধধর্মের একটি কেন্দ্র। এখানকার জ্যাং ঢোক পালরি ফোডাং বৌদ্ধমঠে বহু দুষ্প্রাপ্য তিব্বতি বৌদ্ধ পুঁথি রক্ষিত আছে।[৫]

নামের উৎপত্তিসম্পাদনা

কালিম্পং নামের সঠিক উৎস অজ্ঞাত। সর্বজনগ্রাহ্য মত হল, তিব্বতি ভাষায় কালিম্পং মানে রাজার মন্ত্রীদের সভা (বা বেড়া)। কথাটি এসেছে কালোন (রাজার মন্ত্রী) ও পং (বেড়া) শব্দদুটি থেকে। অন্য মতে, লেপচা ভাষায় কালিম্পং শব্দটির অর্থ যে শৈলশিরায় আমরা খেলা করি। অতীতে এখানে স্থানীয় আদিবাসীদের গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়ানুষ্ঠানের আসর বসত। পাহাড়ের অধিবাসীরা এই অঞ্চলকে কালিবং-ও (কালো নাল (spur)) বলে থাকেন।[৬]

দি আনটোল্ড অ্যান্ড আননোন রিয়ালিটি অ্যাবাউট দ্য লেপচাস গ্রন্থের রচয়িতা কে পি তামসাং-এর মতে, কালিম্পং কথাটি এসেছে কালেনপাং শব্দ থেকে, লেপচা ভাষায় যার অর্থ গোষ্ঠীর ছোটো পাহাড় ("Hillock of Assemblage")।[৭] শব্দটি প্রথমে হয় কালীবাং। পরে আরও বিকৃত হয়ে হয় কালিম্পং। অন্য মতে, এই অঞ্চলে বহুল প্রাপ্ত তান্তব উদ্ভিদ কাউলিম-এর নামানুসারে এই অঞ্চলের নাম হয়েছে কালিম্পং।কালিম্পং মহুকুমা নতুন জেলা হিসাবে আত্মপ্রকাশের পর জেলার নামও রাখা হয় কালিম্পং।

ইতিহাসসম্পাদনা

নদ নদীসম্পাদনা

প্রশাসনিক এলাকাসম্পাদনা

এই কালিম্পং জেলা একটি মহুকুমা (কালিম্পং মহকুমা), কালিম্পং পুরসভা এবং কালিম্পং-১, কালিম্পং-২ ও গোরুবাথান ব্লক তিনটি নিয়ে গঠিত। এই ব্লকে ৪২টি গ্রাম পঞ্চায়েত রয়েছে। কালিম্পং এই মহকুমার সদর শহর। কালিম্পং পুরসভা ছাড়াও এই মহকুমা ৪২টি গ্রাম পঞ্চায়েত অবস্থিত। গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি কালিম্পং-১, কালিম্পং-২ ও গোরুবাথান ব্লকের অধীনস্থ।[১]

ব্লকসম্পাদনা

কালিম্পং-১ ব্লকসম্পাদনা

কালিম্পং-১ ব্লক ১৮টি গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ে গঠিত। এগুলি হল: বং, কালিম্পং, সামালবং, তিস্তা, ড. গ্রাহামস হোমস, নিম্ন এছায়, সামথার, নিমবং, ডুংরা, উচ্চ এছায়, সেওকবির, ভালুকহোপ, ইয়াংমাকুম, পাবরিংটার, সিনডেপং, কাফের কানকে বং, পুডুং ও তাশিডিং।কালিম্পং এই ব্লকের একমাত্র থানা। ব্লকের সদর কালিম্পং।

কালিম্পং-২ ব্লকসম্পাদনা

কালিম্পং-২ ব্লক ১৩টি গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ে গঠিত। এগুলি হল: দালাপচন্দ, কাশিয়ং, লোলে, লিংসেইখা, গিতাব্লিং, লাআ-গিতাবেয়ং, পেয়ং, কাগে, লিংসে, শাংসে, পেডং স্যাকিয়ং ও শান্তুক। এই ব্লকে কোনো থানা নেই। ব্লকের সদর আলগোরা।

গোরুবাথান ব্লকসম্পাদনা

গোরুবাথান ব্লক ১১টি গ্রাম পঞ্চায়েত নিয়ে গঠিত। এগুলি হল: দালিম, গোরুবাথান-২, পাটেংগোডাক, টোডেটাংটা, গোরুবাথান-১, কুমাই, পোখরেবং, স্যামসিং, আহালে, নিম ও রোঙ্গো।এই ব্লকে দুটি থানা রয়েছে। যথা, গোরুবাথান ও জলঢাকা।ব্লকের সদর ফাগু।

বিধানসভা কেন্দ্রসম্পাদনা

সীমানা পুনর্নির্ধারণ কমিশনের সুপারিশ অনুসারে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা কেন্দ্রগুলি যে সীমানা পুনর্নির্ধারিত হয়েছে, সমগ্র মহকুমাটি নিয়ে কালিম্পং বিধানসভা কেন্দ্র গঠিত হয়েছে। এই বিধানসভা দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত।

ভাষাসম্পাদনা

কাালিম্পং জেলার ভাষা- ২০১১ [৮].[৯]

  নেপালী (৯১.৮৮%)
  লেপচা (২.৭২%)
  ভোটিয়া (০.৮৪%)
  বাংলা (০.৪৬%)
  হিন্দী (২.০৫%)
  সাদরি (১.০২%)
  অন্যান্য (১.০৩%)

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Report of the Commissioner for Linguistic Minorities in India: 48th report (July 2010 to June 2011)" (PDF)। Commissioner for Linguistic Minorities, Ministry of Minority Affairs, Government of India। পৃষ্ঠা 159–160। ২০১২-১০-১৩ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৯-১৩ 
  2. "General Information"Tourism DepartmentDarjeeling Gorkha Hill Council। ২০০৮-১১-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-০৮ 
  3. "India moves over 6,000 troops to border with China"। Chennai, India: The Hindu। ১৩ ডিসেম্বর ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-০৮ 
  4. "Education and prospects for employment" (PDF)। Government of Sikkim। পৃষ্ঠা 33। ২০০৯-০৩-২৭ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-২১ 
  5. "Special: Kalimpong, West Bengal"Rediff। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-০৮ 
  6. "Kalimpong Etymology"। Government of West Bengal। ২০০৮-১২-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৮-১২-২২ 
  7. "History of kalimpong"Darjeelingnews.net। Darjeeling News Service। ২০০৭-০২-০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০২-১৭ 
  8. http://www.censusindia.gov.in/2011census/C-16.html
  9. "DISTRIBUTION OF THE 22 SCHEDULED LANGUAGES-INDIA/STATES/UNION TERRITORIES - 2011 CENSUS" (PDF)। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০১৬ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা