ওয়েটজে কেউনিং

ওলন্দাজ লেখক
ওয়েটজে কেউনিং

ওয়েটজে কেউনিং (ইংরেজি: Wytze Keuning) (২১ ডিসেম্বর, ১৮৭৬ - ১৮ ডিসেম্বর ১৯৫৭) ছিলেন নেদারল্যান্ডের মানুষ। পেশায় প্রাইমারি স্কুল শিক্ষক, শেষ জীবনে প্রধান শিক্ষক। ব্যক্তিগতভাবে বৌদ্ধ ধর্ম এবং ভারতের দর্শন নিয়ে আগ্রহী ছিলেন। জীবনে তিনি কখনই ভারতে আসেননি। স্কুলের চাকরি থেকে অবসরে যান ১৯৩৭ সালে। এরপর প্রিয়দর্শী সম্রাট অশোকের ওপর একাগ্রচিত্তে পড়াশোনা শুরু করেন। দশ বছর পরিশ্রমের পর ১৯৪৭ সালে প্রকাশিত হয় তার ম্যাগনাম ওপাস ‌'অশোক দ্য গ্রেট' নামের এক ঐতিহাসিক জীবনীগ্রন্থ। বইটি ঐতিহাসিক ফিকশন। ১০০০ পৃষ্ঠার বই। যতদূর জানি দুনিয়ার শ্রেষ্ঠতম এই শাসকের জীবন নিয়ে এমন বই দুনিয়ায় আর দ্বিতীয়টি নেই। অশোকের অনুশাসন আর ঐতিহাসিক তথ্যের ওপর ভিত্তি করে লেখা হয়েছে এ বই। ফিকশন হলেও অশোকের জীবন ও কর্মকে বুঝতে বইটি গুরুত্বপূর্ণ।

১৯৯০-এর দশকে জে. এলিজাবেথ স্টেয়ার বইটি ইংরেজি ভাষায় অনুবাদ একটি খণ্ডে অনুবাদ করেন। তিনটি বইকে একটি খণ্ডে যে নামকরণ করা হয় তা হচ্ছে অশোক - দ্য ওয়াইল্ড প্রিন্স, অশোক - দ্য ওয়াইজ রুলার এবং অশোক-দ্য ওয়ার্ল্ড'স গ্রেটেস্ট টিচার[১][২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Emperor suite"। Hindustan Times। ২০১১-০৪-০৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৯-৩০ 
  2. "FEATURES / BOOK REVIEW : from the blurb"। The Hindu। ২০১১-০৪-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৯-৩০