এম এ খালেক

বাংলাদেশী রাজনীতিবিদ

এম এ খালেক (১৯২২ - ২০০৮ সালের ৪ জানুয়ারি) শাহাবুদ্দিন আহমেদ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় মন্ত্রী পদমর্যাদার একজন বিচারক ও প্রাক্তন উপদেষ্টা ছিলেন।[১]

বিচারপতি

এম এ খালেক
জন্ম১৯২২
মৃত্যু৪ জানুয়ারি ২০০৮
জাতীয়তাবাংলাদেশী
মাতৃশিক্ষায়তনকারমাইকেল কলেজ , কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাবিচারক

শৈশব ও পড়ালেখা

সম্পাদনা

খালেক ১৯২২ সালে সোনারাই, ডোমার উপজেলা, নীলফামারী জেলা, পূর্ব বাংলা, ব্রিটিশ ভারত জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তিনি রংপুরের কারমাইকেল কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্ত আইন ডিগ্রি অর্জন করেন।[২]

কর্মজীবন

সম্পাদনা

১৯৪৭ সালে, পূর্ব পাকিস্তান সিভিল সার্ভিসের বিচার বিভাগে যোগদান করেন। ১৯৫৬ থেকে ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত পূর্ব পাকিস্তান বিধানসভার সেক্রেটারি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এরপরে দায়রা ও জেলা জজ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৩ সালে বিচারিক সেবা থেকে অবসর গ্রহণ করেন। প্রশাসনিক আপিল ট্রাইব্যুনালে কাজ করেছিলেন। সাংবাদিকদের মজুরি বোর্ড কমিশনের কমিশনার ছিলেন। তিনি ঢাকা শিশু হাসপাতালের ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য ছিলেন। শাহাবুদ্দিন আহমেদের মন্ত্রিসভায় আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন।[২]

ব্যাক্তগত জীবন

সম্পাদনা

তার বড় মেয়ে শাহীন সুলতানা আবুল হাসান মাহমুদ আলী সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।[২]

মৃত্যু

সম্পাদনা

২০০৮ সালের ৪ জানুয়ারি মারা যান।[২]

তথ্যসূত্র

সম্পাদনা
  1. "মাননীয় মন্ত্রী/উপদেষ্টাগণের নাম ও মেয়াদকাল"বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০২১ 
  2. "Justice Khaliq passes away"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ জানুয়ারি ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মে ২০২০ 
পূর্বসূরী:
হাবিবুল ইসলাম ভূঁইয়া
বাংলাদেশের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী
১০ ডিসেম্বর ১৯৯০ – ১৬ মার্চ ১৯৯১
উত্তরসূরী:
মির্জা গোলাম হাফিজ