এভিচি

সুয়েডীয় ডিজে ও সঙ্গীত প্রযোজক

টিম বার্গলিং (সুইডিশ নাম:টিম বার্লিং) পেশাগতভাবে এভিচি নামে পরিচিতি, যিনি একজন সুইডিশ সংগীতশিল্পী, ডিজে, রিমিক্সার এবং রেকর্ড প্রযোজক ছিলেন।

এভিচি
Avicii 2014 003.jpg
জন্ম
টিম বার্গলিং

(১৯৮৯-০৯-০৮)৮ সেপ্টেম্বর ১৯৮৯
স্টকহোম, সুইডেন
মৃত্যু২০ এপ্রিল ২০১৮(2018-04-20) (বয়স ২৮)
অন্যান্য নাম
  • টিম বার্গ
  • টিম লিদেন
  • টম হাংস
  • টিম্বারমেন
পেশা
  • সংগীতশিল্পী
  • ডিস্ক জকি
  • রিমিক্সার
  • রেকর্ড প্রডিউসার
কার্যকাল২০০৬-২০১৮
পিতা-মাতা
  • ক্লাস বার্গলিং (পিতা)
  • এনকি লিদেন (মাতা)
সঙ্গীত কর্মজীবন
ধরন
বাদ্যযন্ত্রসমূহ
সহযোগী শিল্পী
ওয়েবসাইটavicii.com

১৬ বছর বয়সে বার্গলিং তার রিমিক্সগুলি ইলেকট্রনিক মিউজিক ফোরামে পোস্ট করতে শুরু করেন, যার ফলে তার প্রথম রেকর্ড চুক্তি ঘটে। ২০১১ সালে তিনি তার একক সংগীত "লেভেলস" এর মাধ্যমে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। তার প্রথম স্টুডিও অ্যালবাম, ট্রু (২০১৩), একাধিক শৈলী উপাদান সঙ্গে মিশ্রিত ইলেকট্রনিক সঙ্গীত এবং সাধারণত ইতিবাচক রিভিউ পেয়েছে। এটি পনেরোটি দেশে শীর্ষ দশে উঠেছিল এবং আন্তর্জাতিক ডান্স চার্টের শীর্ষে উঠেছিল; এর প্রধান একক সংগীত, "ওয়েক মি আপ", ইউরোপের বেশিরভাগ সঙ্গীত বাজারে শীর্ষে উঠেছে এবং যুক্তরাষ্ট্রে চতুর্থ স্থানে পৌঁছেছিল।

২০১৫ সালে,টিম তার দ্বিতীয় স্টুডিও অ্যালবাম,স্টোরিজ প্রকাশ করেছিলেন এবং২০১৭ সালে তিনি একটি ইপি,এভিচি (০১) প্রকাশ করেছিলেন।টিম ২০১২ সালে ডেভিডগেটারর সাথে "সানশাইন" এর জন্য গ্র্যামি পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়েছিল এবং২০১৩ সালে লেভেলস এর জন্য"।

শারীরিক সমস্যা এবং কিছু বছর ধরে মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত হওয়ায় ২০১৬ সালে টিম সফর থেকে বিরত থাকা শুরু করেন। ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসের ২০তারিখ এভিচি ওমানের মাস্কাটে আত্মহত্যা করেন। তাকে ৮ ই জানুয়ারি তার জন্মস্থান সুইডেনের স্টকহোমে সমাধিস্থ করা হয়।