ঋণ ব্যবস্থা ঋণ (লাতিন শব্দ ক্রেডিট, "(পুরুষ/নারী/জড়) বিশ্বাস করে") হল বিশ্বাস যা একজন অপরকে অর্থ (টাকা) অথবা সম্পদ দিতে প্রেরিত করে, যখন উক্ত দ্বিতীয় ব্যক্তি তৎক্ষণাৎ প্রথম ব্যক্তিকে পরিশোধ করতে পারে না, (ফলে একটি ঋণ তৈরী হয়)। কিন্তু প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকে, পরবর্তী সময়ে সেই সম্পদ (অথবা সমতুল মূল্যের কোনো জিনিস) ফেরত দিতে।[১] অন্যভাবে বলা যায়, ঋণ হচ্ছে সেই পদ্ধতি যাতে আদান প্রদান বিধিসম্মত, আইনানুগ বাধ্যতামূলক এবং তা বহু সংখ্যক সম্পর্কহীন মানুষের মধ্যে প্রসারিত।

ঋণদান কার্ড ঋণ ব্যবস্থার একটি সাধারণ অঙ্গ। এই ঋণদান কার্ডের সাহায্যে, ঋণদান কার্ড সংস্থা, প্রায়শই যেটি ব্যাংক হয়, ঋণদান কার্ড অধিকারীকে একাধিক ঋণ দেয়। ঋণদান কার্ড অধিকারী কোন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে জিনিস কিনতে পারেন অথবা কেনার জন্য ঋণদান কার্ড সংস্থার কাছ থেকে ঋণ নিতে পারেন।
২০০৫ সালে অন্তর্দেশীয় বেসরকারী ক্ষেত্র

ঋণদানকৃত সম্পদ আর্থিক (যেমন ধারের অনুমোদন) হতে পারে, অথবা তা কোনো জিনিস বা পরিষেবাও হতে পারে (যেমন উপভোক্তা ঋণ)। বকেয়া যেকোনো ধরনের ফেলে রাখা পাওনাকেই বোঝায়।[২] কোনো ঋণদাতা, যাকে একজন উত্তমর্ণও বলা হয়, একজন ঋণ গ্রহীতাকে, যাকে অধমর্ণও বলা যায়, ঋণ দেন।

শব্দ সংক্রান্ত ইতিহাসসম্পাদনা

ইংরাজীতে "ক্রেডিট" অর্থাৎ ঋণ শব্দটি ১৫২০ সালে ব্যবহার হয়। এই শব্দটি মধ্যযুগীয় ফরাসী শব্দ ক্রেডিট (১৫শ শতাব্দি) "বিশ্বাস, আস্থা", ইতালীয় শব্দ ক্রেডিত, লাতিন শব্দ ক্রেডিয়াম "ঋণ, যা অন্যকে বিশ্বাস করে দেওয়া", ক্রেডিয়ার-এর ক্রিয়াবাচক পুরাঘটিত অতীত শব্দ "বিশ্বাস করা, আস্থা রাখা, নির্ভর করা" থেকে উদ্ভূত। "ঋণ" এর ব্যবসায়িক অর্থ, যা শুরুতে ইংরাজীতে ব্যবহার হত তাই বোঝায় ('ক্রেডিটার' শব্দটি ঋণদাতা অর্থে ব্যবহার ১৫শ শতাব্দির মধ্যভাগ থেকে)"। "ঋণদান সংঘ" এই ব্যুৎপন্ন শব্দ মার্কিনী ইংরাজী শব্দ হিসাবে প্রথম ব্যবহার হয় ১৮৮১ সালে। আরেকটি শব্দ "ক্রেডিট রেটিং" ব্যবহার হয় ১৯৫৮ সালে।[৩]

ইতিহাসসম্পাদনা

ঋণদান কার্ড ১৯০০ সাল থেকেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। বড় বড় সংস্থাগুলি অন্যান্য সংস্থার সাথে শৃঙ্খলিত হয়ে, ঋণদান কার্ডের মাধ্যমে নিজেদের পাওনা মেটানোর একটি ব্যবস্থা গড়ে তোলে। এই সংস্থগুলি ঋণদান কার্ড অধিকারীদের কাছ থেকে একটি বাৎসরিক ফি বা দক্ষিণা নেয় এবং রসিদ ব্যবস্থা এমন করা হয়, যাতে সর্বশেষ রসিদরাশির একটি নির্দিষ্ট শতাংশ অন্য সংস্থা থেকে গ্রহণ করে। এই পদ্ধতিতেই সারা বিশ্বে ব্যাংকের মাধ্যমে ঋণদান কার্ড ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে। প্রথম ঋণদান কার্ড হল, ১৯৫৮ সালে ব্যাংক অফ আমেরিকার 'ব্যাংক আমেরিকার্ড' ও ১৯৫৮ সালেই আমেরিকান এক্সপ্রেসের 'আমেরিকান এক্সপ্রেস কার্ড'। এইগুলি সংস্থাকৃত ঋণদান কার্ডের মতোই কাজ করে। তদাধিক, এই কার্ডগুলি দিয়ে যেকোনো পরিষেবা ক্রয়ের পরিধি ব্যপ্ত হয়েছে এবং ঋণগ্রহীতা, এক্ষেত্রে কার্ড অধিকারীকে আবর্তিত ঋণগুলিকে একত্রিত করার অনুমতি দেয়। আবর্তনীয় ঋণের অর্থ হল বাকি ঋণ, ঋণগ্রহীতা কিছু আর্থিক দায়ের মূল্যে পরে শোধ করার পদ্ধতি।[৪][৫]

ব্যাংক কর্তৃক অনুমোদিত ঋণসম্পাদনা

উপস্থিত ঋণের পরিমাণের অধিকাংশই ব্যাংক দ্বারা অনুমোদিত ঋণ। ব্যাংক জমাকারী ও কর্জকারীর মধ্যস্থস্বরূপ, এরকম চিরাচরিত ধারণাটি ভুল। আধুনিক ব্যাংকিং এর ধারণা হল, ঋণ উৎপাদনকারী।[৬] ঋণের দুটি ভাগ: প্রথমটি ঋণের (অর্থ) ও সেই অনুরূপ ধার, যা সুদ সমেত ফেরত দেওয়া বাধ্যতামূলক। ইংল্যান্ডের অর্থব্যবস্থার অধিকাংশই এই ঋণদান থেকেই সৃষ্টি হয়েছে (ডিসেম্বর, ২০১৩ সালের হিসাবে প্রায় ৯৭% [৭])। যখন ব্যাংক ঋণ অনুমতি (অর্থাৎ ঋণদান করে) দেয়, তখন ব্যাংক তার জমাখরচের বিবরণী তালিকা অর্থাৎ ব্যালান্স শিটে পরিশোধ পঙক্তিতে নেতিবাচক অঙ্ক লিপিবদ্ধ করবে এবং সম্পদ আয়ের পঙক্তিতে সমপরিমাণ ইতিবাচক অঙ্ক অন্তর্ভুক্ত করবে, যে সম্পদ ঋণগ্রহীতার কাছ থেকে (সুদ সমেত) ঋণরাশি পরিশোধ হিসাবে প্রাপ্ত করবে। ঋণ যখন সম্পূর্ণ পরিশোধ হয়ে যাবে এই ঋণ বা ধার বাতিল বলে গণ্য হবে ও অর্থনীতিতে টাকাটির আর অস্তিত্ব থাকবে না। ইতিমধ্যে, ঋণগ্রহীতা একটি সুনিশ্চিত অর্থরাশি পেয়েছেন, (যা বাড়িঘরের মতো কিছু কেনার কাজে লেগেছে) এবং একই সঙ্গে সমপরিমাণ নঞার্থক অর্থরাশি তাঁর নামে লিখিত হয়েছে যা তাঁকে নির্দিষ্ট সময়ে ব্যাংককে পরিশোধ করতে হবে। বেশিরভাগ ঋণ, বাড়ি বা সম্পত্তি কেনার কাজে লাগে যা এইধরনের বাজারে মুদ্রাস্ফীতি ঘটায় এবং এটি অর্থনৈতিক চক্রের মূল চালক।

যখন কোনো ব্যাংক ঋণ দেয়, কার্যক্ষেত্রে সে নিজেই অধমর্ণের মতোই দায়বদ্ধ। যদি কোনো ব্যাংক প্রচুর খারাপ ঋণ দেয় (অর্থাৎ সেই সব গ্রহীতাকে যারা বকেয়া ঋণ শোধ করতে পারবে না), সেই ব্যাংক তার সম্পদের থেকে বেশি আর্থিক দায়গ্রস্থ হওয়ার কারণে দেউলিয়া হয়ে যাবে। ব্যাংকে তাৎক্ষণিক ঋণ দানের টাকা থাকল কি থাকল না, তা গুরুত্বপূর্ণ নয়; ব্যাংকিং লাইসেন্সই ব্যাংককে ঋণদান করতে সাহায্য করে। ব্যাংকের আর্থিক দায় থেকে তার সম্পদের পরিমাণ বেশি থাকাটাই গুরুত্বপূর্ণ। ব্যাংকের হাতে নগদ সম্পদ; যেমন নগদ টাকা থাকা জরুরী তার প্রাপকদের চাহিদা মেটানোর জন্য। যদি কোনো ব্যাংক তা না পারে, তার দেউলিয়া ধোষিত হওয়ার ঝুঁকি থাকে।

ব্যাংক দু'ধরনের ব্যক্তিগত ঋণ বা বকেয়া ব্যবস্থা করে; একটি অনিরাপদ (বন্ধকহীন) বকেয়া, যেমন উপভোক্তার ঋণদান কার্ড এবং ছোট অনিশ্চিত ঋণ; আর একটি নিশ্চিত (বন্ধক যুক্ত) বকেয়া যেটা নির্দিষ্টভাবে নিশ্চিত থাকে ঐ টাকা দিয়ে (বাড়ি, গাড়ি, নৌকা ইত্যাদির) মতো কোনো জিনিস কেনার কারণে। ঋণের অর্থ ফেরত না পাওয়ার (বকেয়া খেলাপ) ঝুঁকি কমানোর জন্য, ব্যাংক বিবেচনাধীন ঋণগ্রহীতাকে বেশি অঙ্কের ঋণ দিতে চায় এবং সমতুল মূল্যের বন্ধক রাখতে চায় যাতে বকেয়া মেটানোর শর্তাদি লঙ্ঘিত হলে, তা ব্যাংক অধিগ্রহণ করতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে বন্ধক রাখা সম্পদ বিক্রি করে তার দায় কমাতে পারে। নিশ্চিত ঋণের উদাহরণস্বরূপ, বাড়ি, নৌকা ইত্যাদি ও পি.সি.পি.(ব্যক্তিগত শর্তাধীন প্রকল্প) বা গাড়ি কেনার বকেয়া চুক্তির ক্ষেত্রে উপভোক্তার বন্ধকী সম্পদ। আর্থিক মূলধনের সঞ্চলন সাধারণত বকেয়া বা অনির্দিষ্ট সুদের হারযুক্ত লগ্নীপত্রের স্থানান্তরের ওপর নির্ভর করে। বিশ্বব্যাপী ঋণের বাজার, সারা বিশ্বে অনির্দিষ্ট সুদের হারযুক্ত লগ্নিপত্রের প্রায় তিনগুণ। ঋণদান পরবর্তীতে, সত্বার সুনাম, বা ঋণদানের উপযুক্ততার ওপর নির্ভরশীল, যা তহবিলের দায়িত্ব নেয়। আর্থিক বাজারে ঋণ কেনাবেচাও হয়। এর বিশুদ্ধরূপ হচ্ছে ক্রেডিট ডিফল্ট সোয়াপ বাজার, যেটি মূলত ঋণদান বীমার কেনাবেচার বাজার। ক্রেডিট ডিফল্ট সোয়াপ হচ্ছে সেই মূল্যের প্রতীক, যেখানে দুইপক্ষের ঝুঁকির – আদান প্রদান হয় - সুরক্ষা বিক্রয়কারী ঋণ খেলাপের ঝুঁকি নেয় একটি অপরীক্ষিত অঙ্কের প্রেক্ষিতে সূচিত বেসিস পয়েন্ট এর বিনিময়ে ( এক বেসিস পয়েন্ট হল শতকরা হারের ১/১০০ ভাগ); সেখানে সুরক্ষা ক্রয়কারী প্রিমিয়াম বা কিস্তি দেয়। আর যদি কোনো খেলাপ হয় (ঋণ, বণ্ড বা অন্যান্য প্রাপ্য), সুরক্ষা ক্রয়কারী সেই প্রাপ্য বিক্রয়কারীর কাছে গচ্ছিত রাখে এবং তা বিক্রয়কারীর কাছ থেকে প্রাপ্ত হয় চূড়ান্ত(অর্থাৎ, একত্রিত রূপে) সময়ে।

শ্রেণী বিভাগসম্পাদনা

বিভিন্ন ধরনের ঋণ হয়। ব্যাংক ঋণ ছাড়াও বাণিজ্যিক ঋণ, উপভোক্তা ঋণ, বিনিয়োগ ঋণ, আন্তর্জাতিক ঋণ, জনসাধারণের জন্য ঋণ এবং ভূসম্পত্তির ওপর ঋণ।

ব্যবসায়িক ঋণসম্পাদনা

বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে, ব্যবসায়ে, "ব্যবসায়িক ধার" কথাটি, জিনিস কিনে দাম পরে মেটানো বোঝায়। অনেক সময়েই ক্রেতার আর্থিক স্থায়িত্বের অভাব থাকলে বা অসুবিধা থাকলে ধার পেতে অসুবিধা হয়। সংস্থারা তাদের উপভোক্তাদের ক্রয়চুক্তির শর্ত সাপেক্ষে ধার মঞ্জুর করে। সেইসব সংস্থা যারা তাদের উপভোক্তাদের ঋণ দেয়, প্রায়ই তারা একজন ঋণদান আধিকারিক নিয়োগ করে।

উপভোক্তা ঋণসম্পাদনা

উপভোক্তা ঋণের সংজ্ঞা স্বরূপ বলা যায়, "তৎক্ষণাৎ পাওনা না মিটিয়েও যে পদ্ধতি অনুযায়ী অর্থ, জিনিস ও পরিষেবা উপভোক্তার কাছে পৌঁছায়"। সাধারণ উপভোক্তা ঋণগুলি হল, ঋণদান কার্ড, বিপণি কার্ড, গাড়ি কেনার পুঁজি, ব্যক্তিগত ঋণ (কিস্তি ঋণ), উপভোক্তার ধারাবাহিক ঋণ, পেডে লোন, খুচরো ব্যবসা ঋণ (খুচরো ব্যবসা কিস্তি ঋণ) এবং বন্ধকী ঋণ। এটিই হল উপভোক্তা ঋণের বিস্তৃত সংজ্ঞা, যা ব্যাংক অফ ইংল্যান্ডের দেওয়া "ব্যক্তিকে ঋণ"এর সংজ্ঞার সাথে মেলে। বন্ধকী বাজারের পরিমাণ ও প্রকৃতি দেখে বহু বিশেষজ্ঞ বন্ধকী ঋণকে ব্যক্তিগত ধার নামে আলাদা একটি শ্রেণিভুক্ত করার পক্ষপাতী; এবং তারফলে বসতবাড়ি বন্ধক বিষয়টি উপভোক্তা ঋণের সংজ্ঞা থেকে বাদ পড়ে যায়, যেমন ইউ.এস. রিসার্ভ গ্রহণ করেছে।[৮]

কর্জকারী, ঋণ যা করেছেন তার অতিরিক্ত মেটান। এই অতিরিক্ত অঙ্কের মধ্যে থাকে সুদ, ব্যাবস্থপনার ফী বা দক্ষিণা ও অন্যান্য খরচ। কিছু খরচ বাধ্যতামূলক যা ঋণ প্রদানকারীর ঋণচুক্তির সঙ্গে যুক্ত। অন্যান্য খরচ, যেমন ঋণ বীমা, যেগুলি ঐচ্ছিক; সেগুলি চুক্তিভুক্ত হবে কিনা তা কর্জকারী ঠিক করবেন।

সুদ এবং অন্যান্য খরচ নানাভাবে উপস্থাপনা করা হয়, কিন্তু নানান আইনি ব্যবস্থায় কর্জকারী এইসব বাধ্যতামূলক খরচ দেয় অ্যানুয়াল পার্সেন্টেজ রেট (এ.পি.আর.)[৯] হিসেবে। এই এ.পি.আর. হিসাবের উদ্দেশ্য, "ঋণ সংক্রান্ত স্বচ্ছতা" আনা, সম্ভাবনাময় কর্জকারীকে আসল ঋণ পরিমাণের পরিমাপ বুঝতে সাহায্য করা এবং প্রতিযোগী বস্তুগুলির মধ্যে তুলনা করার সুযোগ দেওয়া। এই এ.পি.আর. চুক্তির সময় আগাম নেওয়ার ধরন ও পাওনা মেটানো থেকে নির্ণয় করা হয়। ঐচ্ছিক খরচ সাধারণত এ.পি.আর. হিসাবে যুক্ত থাকে না।[১০]

উপভোক্তাকে দেওয়া ঋণের সুদের হার, তা বন্ধকী বা ঋণদান কার্ড, যেটিই হোক; ঋণদান মানের বা স্কোরের ওপর নির্ভর করে নির্ধারিত হয়। বেসরকারী ঋণ মান-নির্ধারক সংস্থা বা কেন্দ্রীভূত ঋণ ব্যুরো, বিভিন্ন বিষয় যেমন, আগে কোনো খেলাপ আছে কিনা, কিস্তি দেওয়ার ইতিহাস এবং ঋণ লভ্যতা ইতাদি পর্যালোচনা করে নির্ণয় করে, এবং কম স্কোর প্রাপ্ত ব্যক্তি থেকে বেশি স্কোর প্রাপ্ত ব্যক্তিকে তুলনামূলক কম এ.পি.আর. এর সুবিধা দেয়।[১১]

তথ্য সমূহসম্পাদনা

  1. Credit (def. 2c). Merriam Webster Online. Retrieved 5 March 2015.
  2. O'Sullivan, Arthur; Sheffrin, Steven M. (২০০৩)। Economics: Principles in Action। Upper Saddle River, New Jersey 07458: Pearson Prentice Hall। পৃষ্ঠা 512আইএসবিএন 0-13-063085-3 
  3. "Credit"www.etymonline.com। Online Etymology Dictionary। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মে ২০১৭ 
  4. Tikkanen, Amy। "Credit card"Encyclopedia Britannica (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৩-২৫ 
  5. https://www.creditcards.com/credit-card-news/history-of-credit-cards.php
  6. "Bank of England Quarterly Bulletin 2014 Q1 - Money Creation in the Modern Economy" (PDF) 
  7. "Bank of England Quarterly Bulletin 2014 Q1: Money Creation in the Modern Economy" (PDF) 
  8. POPLI, G. S.; PURI, S. K. (২০১৩-০১-২৩)। STRATEGIC CREDIT MANAGEMENT IN BANKS (ইংরেজি ভাষায়)। PHI Learning Pvt. Ltd.। আইএসবিএন 9788120347045 
  9. Finlay, S. (২০০৯-০২-০২)। Consumer Credit Fundamentals (ইংরেজি ভাষায়)। Springer। আইএসবিএন 9780230232792 
  10. Finlay, S. (২০০৯)। Consumer Credit Fundamentals (2nd সংস্করণ)। Palgrave Macmillan। 
  11. "What are FICO Scores and How Do They Affect US Consumer Credit?"FinEX Asia। FinEX Asia। সংগ্রহের তারিখ ৮ আগস্ট ২০১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা