প্রাতিষ্ঠানিক বা অ্যাকাডেমিক প্রকাশনায়, ইপ্রিন্ট বা ই-মুদ্রণ হলো গবেষণা নথির (সাধারণত কোনো জার্নাল নিবন্ধ, এছাড়াও অভিসন্দর্ভ, সম্মিলনপত্র, বইয়ের অধ্যায়, অথবা কোনো বই হতে পারে) একটি ডিজিটাল সংস্করণ যা অনলাইনে প্রবেশযোগ্য, এবং কোনো স্থানীয় সংস্থা বা প্রাতিষ্ঠান আথবা কেন্দ্রীয় (বিষয়- বা শৃঙ্খলা ভিত্তিক) ডিজিটাল সংগ্রহস্থল থেকে সংগৃহীত।[১][২][৩][৪]

ই-মুদ্রণ প্রক্রিয়া

জার্নাল নিবন্ধগুলিতে প্রয়োগ করার সময়, "ই-মুদ্রণ" শব্দটি প্রাকমুদ্রণ (পিয়ার রিভিউ বা সহকর্মী পর্যালোচনার পূর্বে) এবং উত্তরমুদ্রণ (সহকর্মী পর্যালোচনার পরে) দুটোই বুঝিয়ে থাকে।

ই-বই - একটি জনপ্রিয় ই-মুদ্রণ মাধ্যম

সাধারণত গবেষণা নথি ব্যতীত অন্যান্য ডিজিটাল সংস্করণ উপকরণ সমূহকে সাধারণত ই-মুদ্রণ বলা হয় না, তবে সেগুলোকে অন্যান্য নাম, যেমন ই-বুক বলা হয়।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Harnad, S., Carr, L., Brody, T. and Oppenheim, C. (2003). "Mandated online RAE CVs linked to university eprint archives". Ariadne, 35.
  2. Swan, A., Needham, P., Probets, S., Muir, A., Oppenheim, C., O’Brien, A., Hardy, R., Rowland, F. and Brown, S. (2005). "Developing a model for e-prints and open access journal content in UK further and higher education". Learned Publishing, 18 (1). pp. 25-40.
  3. Crow, Raym (2006). The Case for Institutional Repositories: A SPARC Position Paper ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ৪ ফেব্রুয়ারি ২০১১ তারিখে. Discussion Paper. Scholarly Publication and Academic Resources Coalition, Washington, D.C.
  4. Swan, A. and Carr, L. (2008). "Institutions, their repositories and the Web". Serials Review, 34 (1).

বহিঃসংযোগসম্পাদনা