আ কিং ইন নিউ ইয়র্ক

আ কিং ইন নিউ ইয়র্ক (ইংরেজি: A King in New York, বাংলা অনুবাদ: নিউ ইয়র্কে এক রাজা) হল ১৯৫৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাস্যরসাত্মক চলচ্চিত্র। এটি রচনা, প্রযোজনা ও পরিচালনা করেছেন চার্লি চ্যাপলিন এবং তিনি নিজেই মূল ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। তার সহশিল্পীদের মধ্যে রয়েছেন ম্যাক্সিন অডলি, জেরি ডেসমন্ড, অলিভার জনস্টন, ডন অ্যাডামস এবং তার পুত্র মাইকেল চ্যাপলিন। ছবিতে ম্যাককার্থি কমিউনিস্ট যুগ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতি ও সমাজের ব্যঙ্গচিত্র উপস্থাপিত হয়েছে। চলচ্চিত্রটি ১৯৫২ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে চ্যাপলিনকে নির্বাসিত করার পর ইউরোপে নির্মিত হয় এবং ১৯৭২ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তি দেওয়া হয়।

আ কিং ইন নিউ ইয়র্ক
পরিচালকচার্লি চ্যাপলিন
প্রযোজকচার্লি চ্যাপলিন
রচয়িতাচার্লি চ্যাপলিন
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারচার্লি চ্যাপলিন
চিত্রগ্রাহকজর্জ পেরিনাল
সম্পাদকজন সিবর্ন
প্রযোজনা
কোম্পানি
অ্যাটিকা ফিল্ম কোম্পানি
পরিবেশকআর্চওয়ে ফিল্ম ডিস্ট্রিবিউটর্স (যুক্তরাজ্য)
ক্লাসিক এন্টারটেইনমেন্ট (যুক্তরাষ্ট্র)
মুক্তি১২ সেপ্টেম্বর ১৯৫৭ (যুক্তরাজ্য)
৮ মার্চ ১৯৭২ (যুক্তরাষ্ট্র)
দৈর্ঘ্য
  • ১২০+ মিনিট (১৯৫৭-এর যুক্তরাজ্যে উদ্বোধনী প্রদর্শনী)
  • ১১০ মিনিট (১৯৫৭-এর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি)
  • ১০৫ মিনিট (১৯৭২-এর যুক্তরাষ্ট্রে পুনঃমুক্তি)
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরেজি

কুশীলবসম্পাদনা

  • চার্লি চ্যাপলিন − রাজা শাহকভ
  • ম্যাক্সিন অডলি − রানী আইরিন
  • জেরি ডেসমন্ড − প্রধানমন্ত্রী ভডেল
  • অলিভার জনস্টন − রাষ্ট্রদূত জোম
  • ডন অ্যাডামস − অ্যান কে, টিভি বিশেষজ্ঞ
  • মাইকেল চ্যাপলিন − রুপার্ট ম্যাকঅ্যাবি
  • সিড জেমস − জনসন, টিভি বিজ্ঞাপনদাতা
  • জোন ইনগ্রাম − মোনা ক্রোমওয়েল
  • জন ম্যাকলারেন − ম্যাকঅ্যাবি সিনিয়র
  • ফিল ব্রাউন − প্রধানশিক্ষক
  • হ্যারি গ্রিন − আইনজীবী
  • রবার্ট আর্ডেন − লিফটবয়
  • অ্যালান গিফোর্ড − স্কুলের তত্ত্বাবধায়ক
  • রবার্ট কড্রোন − মার্কিন মার্শাল
  • জর্জ উডব্রিজ − পরমাণু কমিশনের সদস্য

মূল্যায়নসম্পাদনা

চলচ্চিত্রটি ইউরোপের ভাল ব্যবসা করে, কিন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পরিবেশনার ত্রুটির কারণে ব্যবসায়িকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়। পর্যালোচনাভিত্তিক ওয়েবসাইট রটেন টম্যাটোসে ১০টি পর্যালোচনার ভিত্তিতে ছবিটির রেটিং স্কোর ৮০%। ওয়েবসাইটির পরিসংখ্যান অনুযায়ী ছবিটি "তাজা" হিসেবে স্বীকৃত।[১]

চ্যাপলিনের জীবনীকার জেফ্রি ভেন্স ২০০৩ সালে লিখেন যে আ কিং ইন নিউ ইয়র্ক চ্যাপলিনের সমগ্র কাজের মধ্যে উল্লেখযোগ্য একটি কাজ। তিনি উপসংহারে বলেন, "যদিও আ কিং ইন নিউ ইয়র্ক ১৯৫০ এর দশকের সামাজিক ও রাজনৈতিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে নির্মিত, এর ব্যঙ্গধর্মী বর্ণনা কালোত্তীর্ণ। খুঁত থাকা স্বত্ত্বেও ছবিটি আমেরিকার সবচেয়ে প্রখ্যাত নির্বাসিত ব্যক্তির সেখানকার জীবনের মনমুগ্ধকর অভিজ্ঞতা।"[২]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "A King in New York"রটেন টম্যাটোস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭ 
  2. Vance, Jeffrey. Chaplin: Genius of the Cinema (2003): Harry N. Abrams, p. 329. আইএসবিএন ০-৮১০৯-৪৫৩২-০

বহিঃসংযোগসম্পাদনা