আস্তিক্যবাদী বিবর্তন

এই নিবন্ধটি "সৃজন–বিবর্তন বিতর্ক বিষয়ক ধর্মীয় দৃষ্টিভঙ্গি সম্পর্কিত"। আস্তিক্যবাদের বিবর্তন বিষয়ক আলোচনার জন্য, দেখুন, ধর্মের বিবর্তনীয় মনোবিজ্ঞান

ঐশ্বরিক বা আস্তিক্যবাদী বিবর্তন, আস্তিক বিবর্তনবাদ, বা বিবর্তনীয় সৃজনবাদ হল সে সকল দৃষ্টিভঙ্গি যেগুলো ঈশ্বর বিষয়ক ধর্মীয় শিক্ষাকে জৈবিক বিবর্তন সম্পর্কিত আধুনিক বৈজ্ঞানিক বোঝাপড়ার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ বলে মনে করেন। আস্তিক্যবাদী বিবর্তন কোন বৈজ্ঞানিক তত্ত্ব নয়, বরং এটি এমন কিছু দৃষ্টিভঙ্গির একটি শ্রেণী যেখানে বিশেষ সৃজনবাদী দৃষ্টিভঙ্গির বিপরীতে বিজ্ঞান এবং সাধারণ বিবর্তন কিভাবে ধর্মীয় বিশ্বাসের সাথে সম্পর্কযুক্ত তা নিয়ে আলোচনা করা হয়।

আস্তিক বিবর্তনের সমর্থকগণ সাধারণত ধর্ম ও বিজ্ঞানের সম্পর্ককে গুরুত্ব দিয়ে সাংঘর্ষিক যুক্তিকে প্রত্যাখ্যান করেন ও বিবর্তনীয় মতবাদকে ঈশ্বরের উপর বিশ্বাসের সাথে খাপ খাইয়ে নেন, – তারা এই মতের উপর দণ্ডায়মান থাকেন যে, সৃজনবাদ সম্পর্কিত ধর্মীয় শিক্ষা এবং বিবর্তনের তত্ত্বকে পরস্পরবিরোধী হওয়ার কোন প্রয়োজন নেই।[১][২]

টীকাসম্পাদনা

  1. Numbers 2006, পৃ. 34–38
  2. Evolution Vs. Creationism, Eugenie Scott, Niles Eldredge, p62-63

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

আরও পড়ুনসম্পাদনা

সমসাময়িক উদ্যোগসম্পাদনা

ঐতিহাসিক বিবরণীসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

আস্তিক্যবাদী বিবর্তনের প্রবক্তাগণসম্পাদনা

ব্যক্তিসম্পাদনা

সংগঠনসম্পাদনা