আলিক ব্যানারম্যান

অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার

আলেকজান্ডার (আলিক বা আলেক) চালমার্স ব্যানারম্যান (ইংরেজি: Alec Bannerman; জন্ম: ২১ মার্চ, ১৮৫৪ - মৃত্যু: ১৯ সেপ্টেম্বর, ১৯২৪) নিউ সাউথ ওয়েলসের সিডনিতে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার ছিলেন। ১৮৭৯ থেকে ১৮৯৩ সময়কালে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি।

আলিক ব্যানারম্যান
Alec Bannerman.jpg
আনুমানিক ১৮৮০ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে আলিক ব্যানারম্যান
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামআলেকজান্ডার চালমার্স ব্যানারম্যান
জন্ম(১৮৫৪-০৩-২১)২১ মার্চ ১৮৫৪
প্যাডিংটন, নিউ সাউথ ওয়েলস
মৃত্যু১৯ সেপ্টেম্বর ১৯২৪(1924-09-19) (বয়স ৭০)
প্যাডিংটন, নিউ সাউথ ওয়েলস
ডাকনামলিটল আলেক
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনরাউন্ড আর্ম ডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকাব্যাটসম্যান
সম্পর্কচার্লস ব্যানারম্যান (ভ্রাতা)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৬)
২ জানুয়ারি ১৮৭৯ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট২৪ আগস্ট ১৮৯৩ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৮৭৬ - ১৮৯৪নিউ সাউথ ওয়েলস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২৮ ২১৯
রানের সংখ্যা ১১০৮ ৭৮১৬
ব্যাটিং গড় ২৩.০৮ ২২.১৪
১০০/৫০ ০/৮ ৫/৩০
সর্বোচ্চ রান ৯৪ ১৩৪
বল করেছে ২৯২ ১২৯৫
উইকেট ২২
বোলিং গড় ৪০.৭৫ ২৯.৮১
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/১১১ ৩/১২
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২১/০ ১৫৪/০
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২৮ নভেম্বর ২০১৭

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে নিউ সাউথ ওয়েলসের প্রতিনিধিত্ব করতেন। দলে ‘লিটল আলেক’ ডাকনামে পরিচিত আলিক ব্যানারম্যান মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করতেন।

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে ২৮ টেস্টে অংশ নিয়েছেন। ২ জানুয়ারি, ১৮৭৯ তারিখে মেলবোর্নে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে। তার তুলনায় আট বছরের বড় ভাই চার্লস ব্যানারম্যানও অস্ট্রেলিয়া দলের নিয়মিত সদস্য ছিলেন। অতি-রক্ষণাত্মক ভঙ্গীমায় ব্যাটিং করতেন তিনি। প্রায়শঃই স্ট্রোকবিহীন অবস্থায় মাঠে অবস্থান করতেন।

এ প্রসঙ্গে উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমেনাক লিপিবদ্ধ করে যে, তিনি উইকেটে দেয়াল নির্মাণ করে অন্যতম জনপ্রিয় ক্রিকেটারে রূপান্তরিত হয়েছিলেন। এছাড়াও তার অসম্ভব ধৈর্য্যশক্তি অনুকরণীয় ছিল। প্রথম টেস্টে তিনি দলীয় ইনিংসে সর্বোচ্চ ৭৩ রান তোলেন।

১৮৭৮ ও ১৮৮০ সালে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ফিল্ডিংয়ে দক্ষতা থাকায় তাকে দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। সিডনিতে তার অমার্জনীয় ক্যাচ হাতছাড়া করার প্রেক্ষিতে মিড-অফে অবস্থান নেন তিনি। ব্রিটিশ ভূমিতে অনুষ্ঠিত প্রথমবারের মতো টেস্ট ক্রিকেটে চার্লসের স্থলাভিষিক্ত হয়ে দলের ব্যাটিং উদ্বোধনে মাঠে নামেন ও ইংল্যান্ডে তার প্রথম রান সংগ্রহ করেন।

অবসরসম্পাদনা

অবসর পরবর্তীকালে অধিকাংশ সময়ই সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে নিউ সাউথ ওয়েলস ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের কোচিংয়ের সাথে সংশ্লিষ্ট রাখেন আলিক। দলে কোন নতুন খেলোয়াড় অন্তর্ভুক্ত হলে তিনি নিবিঢ়ভাবে তাকে পর্যবেক্ষণে রাখতেন। এছাড়াও তিনি তাকে নিজের পোশাক ও অংশগ্রহণের কথা তুলে ধরতেন। এর ব্যতিক্রম হলে নবাগত তা জানতে পারতেন। তিনি বলতেন, পুত্র, যদি তুমি ক্রিকেটার না হও, তাহলে তুমি কমপক্ষে এর একটির মতো হও।

৭০ বছর বয়সে ১৯ সেপ্টেম্বর, ১৯২৪ তারিখে তার দেহাবসান ঘটে।[১] এ প্রসঙ্গে উইজডেন মন্তব্য করে যে, যতদিন ক্রিকেট খেলা হবে, ততোদিন আলিক ব্যানারম্যান স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "ALICK BANNERMAN PASSES AWAY"। trove। সংগ্রহের তারিখ ৭ আগস্ট ২০১৫ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা