আরশাদ আইয়ুব

ভারতীয় ক্রিকেটার

আরশাদ আইয়ুব (এই শব্দ সম্পর্কেউচ্চারণ ; জন্ম: ২ আগস্ট, ১৯৫৮) অন্ধ্রপ্রদেশের হায়দ্রাবাদে জন্মগ্রহণকারী সাবেক ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিং করতেন। পাশাপাশি ডানহাতে ব্যাটিংয়েও সক্ষমতা দেখিয়েছেন তিনি। ১৯৮৭ থেকে ১৯৯০ সালের মধ্যে ১৩ টেস্ট ও ৩২ ওডিআইয়ে অংশগ্রহণ করেছেন তিনি।

আরশাদ আইয়ুব
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (1958-08-02) ২ আগস্ট ১৯৫৮ (বয়স ৬২)
হায়দ্রাবাদ, অন্ধ্রপ্রদেশ, ভারত
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই
ম্যাচ সংখ্যা ১৩ ৩২
রানের সংখ্যা ২৫৭ ১১৬
ব্যাটিং গড় ১৭.১৩ ১১.৫৯
১০০/৫০ -/১ -/-
সর্বোচ্চ রান ৫৭ ৩১*
বল করেছে ৩৬৬৩ ১৭৬৯
উইকেট ৪১ ৩১
বোলিং গড় ৩৫.০৭ ৩৯.২২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ৫/৫০ ৫/২১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/- ৫/-
উৎস: ক্রিকইনফো, ১৪ মার্চ ২০১৬

খেলোয়াড়ী জীবনসম্পাদনা

১৯৮৭-৮৮ মৌসুমে দিল্লিতে অণুষ্ঠিত সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তার টেস্ট অভিষেক ঘটে। জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ২৭৬ রানের লক্ষ্য নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেলতে নামলে তিনি একাকী লড়াই করে ৫ উইকেটের চারটিই দখল করেন।[১] এশিয়া কাপের ইতিহাসে প্রথম পাঁচ-উইকেট লাভ করার কৃতিত্ব অর্জন করেন তিনি। ৩১ অক্টোবর, ১৯৮৮ তারিখে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অণুষ্ঠিত খেলায় পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনি ৫/২১ লাভ করেছিলেন। খেলায় তিনি একে-একে রমিজ রাজা, আমির মালিক, শোয়েব মোহাম্মদ, নাভেদ আঞ্জুম এবং ওয়াসিম আকরামকে আউট করে দলের জয় নিশ্চিত করেন।[২]

আরশাদ আইয়ুব ক্রিকেট একাডেমিসম্পাদনা

১৯৯৮ সালে নিজনামে আরশাদ আইয়ুব ক্রিকেট একাডেমি প্রতিষ্ঠা করেন। এরপর থেকেই অনূর্ধ্ব-১৪ থেকে রঞ্জি ট্রফিতে অনেক খেলোয়াড় অংশ নিয়েছে। ২০১৩ সালে একাডেমি থেকে ২০জন শিক্ষার্থী হায়দ্রাবাদ রাজ্য দলসহ অনূর্ধ্ব-১৪,১৬, ১৯, ২২ দল ও রঞ্জি ট্রফিতে অংশ নেয়।[৩]

জানুয়ারি, ২০১০ সালে বাংলাদেশ সফরে ভারত দলের ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও এইচসিএ'র সভাপতি তিনি।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Arshad Ayub's debut Test"। Cricinfo। 
  2. "5th Match: India v Pakistan at Dhaka, Oct 31, 1988 – Cricket Scorecard" (ইংরেজি ভাষায়)। ইএসপিএনক্রিকইনফো। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০১৪ 
  3. "Welcome to Arshad Ayub Cricket Academy"। ১৭ মে ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 

আরও দেখুনসম্পাদনা

বহিঃসংযোগসম্পাদনা