আদর্শগত নীতিশাস্ত্র

নৈতিক ক্রিয়া সংক্রান্ত অধ্যয়ন

আদর্শগত নীতিশাস্ত্র (ইংরেজিঃ Normative ethics) হচ্ছে নৈতিক ক্রিয়া সংক্রান্ত অধ্যয়ন। এটি দার্শনিক নীতিশাস্ত্রের একটি শাখা যা কিভাবে একজন নৈতিকভাবে কাজ করতে বাধ্য থাকে এ বিষয়ক কিছু প্রশ্নের সমষ্টি নিয়ে গবেষণা করে। আদর্শগত নীতিশাস্ত্র অধি-নীতিশাস্ত্র থেকে ভিন্ন; কারণ আদর্শগত নীতিশাস্ত্র কার্যের সঠিকতা ও ভুল বিষয়ক আদর্শ নিয়ে পরীক্ষা করে, আর অধি-নীতিশাস্ত্রে নৈতিক ভাষার অর্থ এবং নৈতিক বিষয়ের অধিবিদ্যা নিয়ে আলোচনা করে। আদর্শগত নীতিশাস্ত্র বর্ণনামূলক নীতিশাস্ত্র থেকেও ভিন্ন, কারণ বর্ণনামূলক নীতিশাস্ত্রে ব্যক্তির নৈতিক বিশ্বাস নিয়ে আলোচনা করা হয়। উদাহরণস্বরূপ বলা যায়, বর্ণনামূলক নীতিশাস্ত্র নির্ণয় করার চেষ্টা করে, মানুষের মধ্যে কত শতাংশ বিশ্বাস করে যে হত্যা করা সবসময় ভুল, যেখানে আদর্শগত নীতিশাস্ত্র চিন্তা করে, এরকম বিশ্বাস ধারণ করা ঠিক নাকি ভুল। তাই, আদর্শগত নীতিশাস্ত্রকে কখনও কখনও বর্ণনামূলক এর বদলে বিধানমূলক বলা হয়। যাই হোক, মেটা-ইথিকাল দৃষ্টিভঙ্গির নির্দিষ্ট কিছু প্রকরণকে নৈতিক বাস্তববাদ বলা হয়, সেখানে নৈতিক বিষয়গুলো একই সাথে বর্ণনামূলক ও বিধানমূলক হতে পারে।[১]

গ্রীক এবং লাতিন ভাষায় নিকোমাচিয়ান নীতিশাস্ত্রের 1566 সংস্করণের প্রথম পৃষ্ঠা, পুণ্যের নৈতিকতার উপর সম্ভবত প্রথম গ্রন্থ।

বেশিরভাগ গতানুগতিক নৈতিক তত্ত্বগুলো সেইসব নীতির উপর ভিত্তি করে গড়ে ওঠে যেগুলো কোন কাজ ঠিক নাকি ভুল তা নির্ণয় করে থাকে। আদর্শগত নীতিশাস্ত্রের আলোচনায় উপযোগবাদ, কান্টবাদসহ চুক্তিবাদের কিছু প্রকরণ অন্তর্ভুক্ত।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. Cavalier, Robert। "Meta-ethics, Normative Ethics, and Applied Ethics"Online Guide to Ethics and Moral Philosophy। ২০১৩-১১-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০২-২৬