আকেলে হাম আকেলে তুম

১৯৯৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত হিন্দি চলচ্চিত্র

আকেলে হাম আকেলে তুম (হিন্দি: अकेले हम अकेले तुम, অনুবাদ 'আমি একা, তুমিও একা') হচ্ছে মনসুর খান পরিচালিত ১৯৯৫ সালের একটি হিন্দি ভাষার সঙ্গীতধর্মী প্রণয়মূলক নাট্য চলচ্চিত্র। এতে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন আমির খান, মনীষা কৈরালা ও মাস্টার আদিল।[২]

আকেলে হাম আকেলে তুম
আকেলে হাম আকেলে তুম.jpg
আকেলে হাম আকেলে তুম চলচ্চিত্রের পোস্টার
পরিচালকমনসুর খান
প্রযোজকরতন জৈন
রচয়িতামনসুর খান
নাসির হুসাইন(সংলাপ)
শ্রেষ্ঠাংশেআমির খান
মনীষা কৈরালা
মাস্টার আদিল
সুরকারঅনু মালিক
চিত্রগ্রাহকবাবা আজমী
সম্পাদকজাফর সুলতান
পরিবেশকইউনাইটেড সেভেন কম্বাইন্স
মুক্তি
  • ৩০ নভেম্বর ১৯৯৫ (1995-11-30)
দৈর্ঘ্য১৬০ মিনিট
দেশভারত
ভাষাহিন্দি
নির্মাণব্যয়৪৫ মিলিয়ন (US$৬,০৭,৫২২.৫)[১]
আয়১২৩.৭ মিলিয়ন (US$১.৬৭ মিলিয়ন)[১]

কাহিনীসম্পাদনা

রোহিত কুমার (আমির খান) একজন প্রতিভাবান গায়ক এবং কিরণ (মনিষা কৈরালা) একজন ক্লাসিক্যাল গায়িকা। হোটেলের একটি অনুষ্ঠানে তারা পরস্পরের সাথে পরিচিত হন, এরপর প্রেম থেকে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। কিরণের পিতা-মাতা বিয়ের বিরোধিতা করলেও তারা বিবাহ করেন।

বিয়ের পর, কিরণ শিল্পী হওয়ার স্বপ্ন ছেড়ে ফিরে আসার পাশাপাশি তার পরিবারের দায়িত্ব সামলান এবং তার পুত্রের দেখাশোনা করেন। কিরণ হতাশায় নিমজ্জিত হন এবং এক পর্যায়ে রোহিতকে ছেড়ে চলে যান এবং আবারও নতুন জীবন শুরু করেন। তার ছেলে ও নিজের পতনশীল কর্মজীবনের দিকে নজর রাখার জন্য রোহিতকে বাধ্য করা হয়। কিছু গুরুতর সমস্যার পরে রোহিত নিজের এবং তার ছেলে সুনীলের জন্য আলাদা দুনিয়া গড়তে সফল হন।

এদিকে, কিরণ একটি বিশাল তারকা হয়ে ওঠেন। কিরণ রোহিতের সাথে সমঝোতার চেষ্টা করেন, সৌভাগ্যক্রমে তখন রোহিত একজন গর্বিত মানুষ কিন্তু রোহিত তার সহমর্মিতা ভুল ভাবে অনুধাবন করে ফলে ব্যপারটা আরও খারাপ দিকে গড়ায় এবং আদালতের মামলাটি সুনীলের হেফাজতের জন্য দায়ের করা হয়।

রোহিতের মামলাটির জন্য অপ্রস্তুত ছিল, কারণ তার আর্থিক অবস্থান কিরণের মতো শক্ত নয়। তিনি খুব কম মূল্যে তার সেরা গান বিক্রি করেন যেন তিনি লড়াই করতে পারেন। আদালতের যুদ্ধের সময়, কিরণের আইনজীবী ভুজবল (পারেশ রাওয়াল) প্রতিটি সম্ভাব্য কৌশল ব্যবহার করে দেখায় যে, রোহিত তার সন্তানের হেফাজতে যোগ্য নয়। তিনি এমনকি তথ্যও ব্যবহার করেছেন যে রোহিত তার বিরুদ্ধে তাকে (তার পুত্রের জীবনের বিষয়ে জানার অধিকার আছে বলে মনে করে) বলেছিলেন। রোহিত তার আইনজীবীকে সত্যের সাথে লড়াই করার নির্দেশ দেন, কারণ তিনি কিরণ এবং তার খ্যাতির ক্ষতি করতে চান না। শেষ পর্যন্ত আদালতে মায়ের পক্ষে রায় হয় এবং কিরণকে সন্তানের হেফাজতের দায়িত্ব দেয়া হয়। এই সময়ে, রোহিত এবং কিরণের সাধারণ বন্ধু কিরণকে ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করে যে রোহিত ভালোর জন্য পরিবর্তিত হয়েছে এবং এখন সে তার ছেলেকে নিয়ে ভাবে। কিরণ জানায় যে তার ছেলে তার সাথে সুখ খুঁজে পাবে না। তিনি রোহিতকে বলেছিলেন যে, তিনি ছেলেকে দূরে নিয়ে যাবেন না এবং তিনি তার নিজের বাড়িতে থাকবেন, যার কাছে রোহিত উত্তর দেবে যে এই কিরণের বাড়িও। কিরণ বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসার জন্য চলে যাচ্ছে মনে হলেও কিন্তু কিরণ হঠাৎ দরজা বন্ধ করে এবং হাসি দেয়। রোহিত , কিরণ , সোনু একে অপরকে আলিঙ্গন করে এবং চলচ্চিত্র শেষ হয়।

কুশলীগণসম্পাদনা

গানের তালিকাসম্পাদনা

গানগুলোর সুরকার ছিলেন অনু মালিক এবং গীতিকার ছিলেন মজরুহ সুলতানপুরি

শিরোনাম গায়ক-গায়িকা সময়
"আইসা জখম দিয়া হ্যায়" উদিত নারায়ণ, শঙ্কর মহাদেবন, আমির খান ০৬ঃ৫১
"আকেলে হাম আকেলে তুম" উদিত নারায়ণ, আদিত্য নারায়ণ ০৪ঃ৪৮
"রাজা কো রাণী সে প্যায়ার (সংস্করণ ১)" উদিত নারায়ণ, অল্কা ইয়াগনিক ০৬ঃ১২
"দিল মেরা চুরায়া কিঁউ" কুমার শানু, অনু মালিক ০৪ঃ৩৮
"রাজা কো রাণী সে প্যায়ার (সংস্করণ ২)" কুমার শানু, অনু মালিক ০৬ঃ১৪
"দিল ক্যাহতা হ্যায়" কুমার শানু, অল্কা ইয়াগনিক ০৬ঃ৪৪

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Akele Hum Akele Tum"বক্স অফিস ইন্ডিয়া। ১০ আগস্ট ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ জুলাই ২০১৬ 
  2. "Here's how Aamir's son from 'Akele Hum Akele Tum' looks now - Bollywood's cutest child actors"দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ 

বহিঃসংযোগসম্পাদনা