প্রধান মেনু খুলুন

উইকিপিডিয়া β

আওয়ামী মুসলিম লীগ

আওয়ামী মুসলিম লীগ (উর্দু: عوامی مسلم لیگ) একটি রাজনৈতিক দল যা ব্রিটিশ ভারত বিভক্তিক্রমে পাকিস্তান জন্মের দুই বৎসর পর ১৯৪৯ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠা করা হয় । এই সময় ঢাকা পাকিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ পূর্ব পাকিস্তানের অংশ ছিল। মুসলিমে লীগ-এরই একটি অংশ নিয়ে হোসেন শহীদ সোহ্‌রাওয়ার্দী, আবদুল হামিদ খান ভাসানী, সামসুল হক, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান প্রমুখ এই রাজনৈতিক দলটি প্রতিষ্ঠা করেন।[১] আওয়ামী মুসলিম লীগ পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন মুসলিম লীগের বাংলা বিকল্প হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই রাজনৈতিক দলটি খুব দ্রুত পূর্ব পাকিস্তানে জনপ্রিয়তা অর্জনে সমর্থন হয়। ঘটনাক্রমে পশ্চিম পাকিস্তানের সামরিক ও রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠার বিরুদ্ধে সংগ্রামে বাঙ্গালী জাতীয়তাবাদ পক্ষে একটি সক্রিয় সংগঠন হিসাবে নেতৃত্বে দিতে থাকে। ১৯৫৩ খ্রিস্টাব্দে মাওলানা ভাসানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আওয়ামী মুসলিম লীগের কাউন্সিল অধিবেশনে দলের নাম থেকে 'মুসলিম' শব্দটি বাদ দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহীত হয়। দলের নাম পরিবর্তন করে আওয়ামী লীগ নির্ধারণ করা হয়।[১]। কিন্তু কি কারণে মুসলিম শব্দটি বাদ দেয়া হয় তা স্পষ্ট করে জানা না গেলেও ধারণা করা হয় যে- মুসলিম শব্দটি থাকায় সাম্প্রদায়িকতার গন্ধ থাকায় এ সিদ্ধান্ত। প্রকৃতপক্ষে অনেকেই মনে করেন, রাজনৈতিক বিরোধ থেকে এটি করা হয়। নতুবা মাওলা ভাসানীও পরে গঠিত আওয়ামীলীগে থাকতেন। এমনকি বতর্মানে তার জন্ম কিংবা মৃত্যু বার্ষিকীও পালন করেন না এদলটি। যদিও অনেক নেতার বেলায় তার উল্টোটা করা হয়।

পরিচ্ছেদসমূহ

পাকিস্তানের আওয়ামী মুসলিম লীগসম্পাদনা

বর্তমানে পাকিস্তানে শেখ রশিদ আহমেদের নেতৃত্বে আওয়ামী মুসলিম লীগ নামের একটি রাজনৈতিক দল রয়েছে। এটি জুন ২০০৮ খ্রিস্টাব্দে প্রতিষ্ঠা করা হয়। শেখ রশিদ আহমেদ ২০০৬ থেকে ২০০৮ খ্রিস্টাব্দ মেয়াদে পাকিস্তান সরকারের রেল মন্ত্রী ছিলেন। এছাড়া পূর্বে সরকারের শ্রম ও জনশক্তি, তথ্য ও সম্প্রচার, শিল্প, ক্রীড়া, সংস্কৃতি, পর্যটন এবং বিনিয়োগ ইত্যাদি মন্ত্রনালয়ের দায়িত্বে ছিলেন।

আরও দেখুনসম্পাদনা

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. আবু জাফর শামসুদ্দীন, আত্মস্মৃতি (১ম খণ্ড), ঢাকা, ২০১১।

বহিঃসংযোগসম্পাদনা

 রাজনীতি বিষয়ক এই নিবন্ধটি অসম্পূর্ণ। ইচ্ছা করলে আপনি এই নিবন্ধটিকে সম্প্রসারিত করে উইকিপিডিয়াকে সমৃদ্ধ করতে পারেন।