অ্যাটমোস্ফিয়ার

কলকাতার একটি ভবন

অ্যাটমোস্ফিয়ার হল ভারতের কলকাতা শহরের একটি বিলাসিবহুল আবাসিক ভবন। অ্যাটমোস্ফিয়ার দুটি লম্বা টাওয়ার এবং একটি দেয়া গঠিত, বিশ্বের প্রথম আবাসিক ভাসমান আকাশ ভাস্কর্য।[১]

অ্যাটমোস্ফিয়ার
Forum Atmosphere - Residential Complex Under Construction - Kolkata 2017-07-15 1540.JPG
জুলাই 2017 সালে নির্মাণাধীন অ্যাটমোস্ফিয়ার ভবন
সাধারণ তথ্য
ধরনআবাসিক
অবস্থানমিরানিয়া গার্ডেন্স, পূর্ব তপসিয়া, ধাপা, কলকাতা, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত
নির্মাণ শুরু হয়েছে২০১১
সম্পূর্ণ২০১৭
স্বত্বাধিকারীরাহুল সারাফ
উচ্চতা১৫২ মিটার (৪৯৯ ফু)
কারিগরী বিবরণ
তলার সংখ্যা৩৯
নকশা এবং নির্মাণ
স্থপতিএআরসি স্টুডিয়
উন্নয়নকারীরফোরাম গোষ্ঠী
গাঠনিক প্রকৌশলীহোসেইন রেজাই, ওয়েব স্টাকচার

এই প্রকল্পটি সিঙ্গাপুরের মারিনা বে স্যান্ডস ভবনের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েছিল।[২]

দেয়াসম্পাদনা

বায়ুতে ৫০০ ফিট উচুতে, 'দিয়া' (যা বাংলা ভাষায় মেঘ বলে) অ্যাটমোস্ফিয়ার আবকসিকে তৈরির দুটি টাওয়ার সংযুক্ত করে। অ্যাটমোস্ফিয়ার আবকসিকের অধিবাসীদের জন্য দিয়ায় ক্লাবের সুবিধা রয়েছে। প্রাথমিকভাবে মণ্ডিততা এবং আকারে পরিবর্তিত মেঘের মতো কল্পনা করা যায়, ভবনটি একটি শারীরিক বর্ধন যেমন নয়, তেমনি অনেকগুলি স্থান খোলা থাকে। এর গঠন বিস্তৃত জালের প্যানেল দ্বারা গঠিত যা কাঠামোগত পাঁজরের চারপাশে আবৃত।আলোর মোবাইল প্রতিফলিত ডিস্ক বহন বিশেষ প্যানেল এই জাল জুড়ে ছড়িয়ে হয়। এই উপাদানগুলির দেয়া কিভাবে এটি প্রভা হয় উপর নির্ভর করে আকারে ভিন্ন প্রদর্শিত হবে। দেয়া বাসিন্দাদের সম্প্রদায় এবং বিনোদনমূলক সুবিধাগুলি, একটি সুইমিং পুল, জিমন্যাশিয়াম, স্পা, চলমান ট্র্যাক, ক্রীড়া সুবিধা, ভার্চুয়াল গল্ফ, সিনেমা, মিটিং স্পেস এবং ফাংশন সুবিধা সহ থাকিবে। [৩]

অন্যানসম্পাদনা

অ্যাটমোস্ফিয়ার নাট গেও দ্বারা নির্বাচিত হয়েছিল তাদের মেগাস্টাকচার ডকুমেন্টারী সিরিজের জন্য।[৪]

তথ্যসূত্রসম্পাদনা