অমৃতা অরোরা

ভারতীয় অভিনেত্রী

অমৃতা অরোরা (জন্ম: ৩১শে জানুয়ারি ১৯৭৮) হলেন একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী, মডেল, টেলিভিশন উপস্থাপক এবং ভিজে[১] তিনি ২০০২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত কিতনে দূর কিতনে পাস নামক চলচ্চিত্রে করিশমা প্যাটেল চরিত্রে অভিনয় করার মাধ্যমে বলিউড জগতে পদার্পণ করেন।

অমৃতা অরোরা
Amrita arora kallista spa.jpg
২০১২ সালে অমৃতা অরোরা
জন্ম (1978-01-31) ৩১ জানুয়ারি ১৯৭৮ (বয়স ৪২)
অন্যান্য নামঅমৃতা অরোরা লদক
পেশাঅভিনেত্রী, মডেল, টেলিভিশন উপস্থাপক, ভিজে
কর্মজীবন২০০২–বর্তমান
দাম্পত্য সঙ্গীশাকীল লদক (বি. ২০০৯)
সন্তান
আত্মীয়মালাইকা অরোরা (বোন)

ব্যক্তিগত জীবন এবং শিক্ষাসম্পাদনা

অমৃতা অরোরা ১৯৭৮ সালের ৩১শে জানুয়ারি তারিখে ভারতের মহারাষ্ট্রের মুম্বইয়ের থানে জেলায় জন্মগ্রহণ করেছেন। তাঁর যখন মাত্র ৬ বছর বয়স ছিল, তখন তাঁর বাবা-মায়ের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। অতঃপর তিনি তাঁর মা ও বোন মালাইকা অরোরার সাথে চেম্বুরে বসবাস করতে থাকেন এবং সেখানেই তিনি তাঁর শৈশব অতিবাহিত করেছেন। তার মা জয়েস পলিকার্প একজন মালয়ালি ক্যাথলিক এবং তাঁর বাবা অনিল অরোরা পাঞ্জাবের ভারতীয় সীমান্তবর্তী এলাকার ফাজিলকার বাসিন্দা ছিলেন, যিনি বাণিজ্য-নৌবহরের কর্মচারী ছিলেন। অমৃতা চেম্বুরের স্বামী বিবেকানন্দ স্কুল থেকে মাধ্যমিক স্তরের পড়াশোনা সম্পন্ন করেছেন। তাঁর খালা, গ্রেস পলিকার্প, মুম্বইয়ের একটি স্কুলের অধ্যক্ষ ছিলেন।[২] জনপ্রিয় অভিনেত্রী মালাইকা অরোরা হচ্ছেন তার বোন।

তিনি ২০০৯ সালে নির্মাণ শিল্পের ব্যবসায়ী শাকীল লড়কের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। ২০০৯ সালের ৪ঠা মার্চ তারিখে তাঁরা খ্রিস্টান রীতিনীতি অনুসারে বিবাহ সম্পন্ন করেছিলেন। অতঃপর ৫ই মার্চ তারিখে মেহেদি এবং ৬ই মার্চ তারিখে নিকাহ সম্পন্ন করেন। তাঁদের দুইটি পুত্র সন্তান রয়েছে; যার মধ্যে একজনের নাম আজান (যে ২০১০ সালের ৫ই ফেব্রুয়ারি তারিখে জন্মগ্রহণ করেছে) এবং অন্য জনের নাম রায়ান (যে ২০১২ সালের ২০শে অক্টোবর তারিখে জন্মগ্রহণ করেছে)।[৩][৪]

চলচ্চিত্র জীবনসম্পাদনা

২০০২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত কিতনে দূর কিতনে পাস নামক চলচ্চিত্রে করিশমা প্যাটেল চরিত্রে অভিনয় করার মাধ্যমে তাঁর অভিনয় জগতে অভিষেক হয়; উক্ত চলচ্চিত্রে তিনি ফারদিন খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন। এই চলচ্চিত্রটি বক্স অফিসে তেমন সফলতা অর্জন করতে পারেনি। তাঁর প্রথম সফল চলচ্চিত্রটি ছিল অ্যাকশন প্রহসন ভিত্তিক আওয়ারা পাগল দিওয়ানা। বেশ কয়েকটি ব্যবসায়িকভাবে অসফল চলচ্চিত্রে অভিনয় করার পর, তিনি ২০০৪ সালে গার্লফ্রেন্ডে অভিনয় করেছেন; এই চলচ্চিত্রটি একটি বিতর্কিত চলচ্চিত্র ছিল যেখানে মেয়েদের সমকামিতা প্রদর্শন করা হয়েছিল। এই চলচ্চিত্রে তিনি ঈশা কোপিকরের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন।

২০০৯ সালে, তাঁর দুইটি চলচ্চিত্র মুক্তি পেয়েছিল; যার মধ্যে প্রথমটি হচ্ছে দেহ এবং অন্যটি হচ্ছে টিম দ্য ফোর্স। একই বছর তিনি সাজিদ নাদিয়াদওয়ালা প্রযোজিত কমবখত ইশকে একটি পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এরপরে তিনি ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে চলচ্চিত্র জগতের অভিনয় থেকে বিদায় নেন।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. "Film Actress Amrita Arora - Bollywood Actress Amreeta Arora - Amrita Arora Biography - Amreeta Arora Profile"। iloveindia.com। সংগ্রহের তারিখ ১ আগস্ট ২০১৬ 
  2. "Chembur will always be our home"। Mid-Day। ১৬ জুন ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১১ 
  3. Bollywood Hungama। "Amrita Arora names her baby boy Rayaan | Bollywood News | Hindi Movies News | Celebrity News - BollywoodHungama.com"। bollywoodhungama.com। সংগ্রহের তারিখ ১ আগস্ট ২০১৬ 
  4. Amrita & Shakeel's celeb-studded wedding Times of India - 5 June 2009

বহিঃসংযোগসম্পাদনা