অংগরাগ মহন্ত

আসামীয় গায়ক এবং সুরকার

অংগরাগ মহন্ত অসম,ভারতের জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ।তিনি পাপন নামে বেশি পরিচিত। তিনি হিন্দী, অসমীয়া, বাংলা ভাষায় গান গেয়েছেন । পাপন ইষ্ট ইন্ডিয়া কোম্পানী নামক সঙ্গীত ব্যান্ডের সঙ্গে জড়িত।

অংগরাগ মহন্ত
Papon.jpg
অংগরাগ মহন্ত
প্রাথমিক তথ্য
আরো যে নামে
পরিচিত
পাপন
জন্ম (1975-11-24) ২৪ নভেম্বর ১৯৭৫ (বয়স ৪৫)
উদ্ভবগুয়াহাটী, অসম, ভারত
ধরনআধুনিক, লোক-সঙ্গীত, ফিউজন
পেশাকণ্ঠশিল্পী, গীতিকার, সুরকার
বাদ্যযন্ত্রসমূহকণ্ঠ, রিদম গিটা্র, কি-বোর্ড
লেবেলবিভিন্ন
সহযোগী শিল্পীইষ্ট ইণ্ডিয়া কোম্পানী
ওয়েবসাইটpapon.in

প্রারম্ভিক জীবনসম্পাদনা

অংগরাগ মহন্তের জন্ম হয় আসামের দুইজন জনপ্রিয় শিল্পী খগেন মহন্তের ঔরসসে ও অর্চনা মহন্তের গর্ভে। তিনি শৈশবকাল থেকে সঙ্গীতের সঙ্গে জড়িত ছিলেন।[১][২]

শিল্পী জীবনসম্পাদনা

অসম তথা উত্তর পূর্বাঞ্চলের ধর্মীয় গানে প্রভাবিত হয়ে পাপন আধুনিক বাদ্যযন্ত্র ব্যবহার করে ধর্মীয় গানগুলো শ্রোতাদের মধ্যে ফিউজন রুপে প্রতিষ্ঠাপন করেছেন।[১] ২০০৫ সালে পাপনের প্রথম অসমীয়া গানের অ্যালবাম জোনাক রাতি মুক্তি পায়। অ্যালবাম মুক্তির পর তিনি আসামের শ্রোতাদের মধ্যে জনপ্রিয়তা লাভ করেন। তিনি ২০১০ সালে “চিনাকী অচিনাকী” নামক বিখ্যাত গানের এলবামে কন্ঠদান করেন।

শ্রেষ্ঠ গায়কসম্পাদনা

২০১১ সালে অসমীয়া চলচ্চিত্র রামধেনু-র সঙ্গীত ওজায় যা নৈ গান গেয়ে তিনি শ্রেষ্ঠ কণ্ঠশিল্পীর মর্যদা লাভ করেন । ২০১১ সালের এপ্রিল মাসে তিনি দম মারো দম নামক হিন্দী চলচ্চিত্রের জিয়ে কিউ গীতটিতে কন্ঠদান করে বিশাল সফলতা অর্জন করেন।[৩][৪] এই সফলতার পর তিনি অনেক হিন্দী ও বাংলা চলচ্চিত্রে কন্ঠদান করেন । পাপনে কন্ঠদান করা কয়েকটি উল্লেখযোগ্য হিন্দী ও বাংলা চলচ্চিত্রের নাম : সাউন্ডট্রেক (হিন্দী ২০১১), আই অ্যাম কালাম ( হিন্দী ২০১১) ও সিস্টেম ( বাংলা ২০১১) ইত্যাদি। ২০১১-১২ বর্ষে হেঙুল থিয়েটারে পাপন শ্রেষ্ঠ শিল্পী রূপে মরিচিকা নাটকে কন্ঠদান করেন ।

ইষ্ট ইন্ডিয়া কম্পানীসম্পাদনা

পাপন ইষ্ট ইন্ডিয়া কম্পানী নামক ব্যান্ডের প্রধান কন্ঠশিল্পী। ২০০৭ সালে স্থাপিত ইষ্ট ইন্ডিয়া কম্পানী ব্যান্ডের অন্যান্য সদস্যের নাম: ব্রীণ দেসাই (সঙ্গীত ব্যবস্থাপক), কৃষ্ণা (গিটারবাদক), দিপু(বেস গিটারবাদক), কির্তী (তবলাবাদক) এবং পংকজ (গিটারবাদক)।[৫] এই ব্যান্ড অসম সহ নিউজিলেন্ডে সঙ্গীত পরিবেশন করেছে।[৬]

অন্যান্যসম্পাদনা

পাপন ইস্ট ইন্ডিয়া ব্যান্ডের অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে এম টি.ভি কোক স্টুডিও প্রথম শিজেন (২০১১), দ্বিতীয় শিজেন (২০১২) ও তৃতীয় শিজেনে (২০১৩) সঙ্গীত পরিচলনা করেন। তিনি প্রথম শিজেনে বিহুগীত, দ্বিতীয় শিজেনে টোকারী গীত ও তৃতীয় শিজেনে ঝুমুর গান, হোলী গীত, গোয়ালপরীয়া গীত ও লোকোগীত গেয়ে সর্বমোট ৬টি গানের একটি খন্ড পরিচালনা ও প্রয়োজনা করেন। পাপন কন্ঠদান করা কোক স্টুডিওর গান সমগ্র ভারতে জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।[৭] স্টার ওয়ার্ল্ডে ভারতের সঙ্গীত ভিত্তিক তথ্যচিত্র ধারাবাহিক দ্য দুয়রিষ্ট প্রথম শিজেনের ষষ্ঠ খন্ডে রব্বি শেরগীলের সংঙ্গে সঙ্গীত পরিবেশন করার জন্য পাপনকে আমন্ত্রণ করা হয়েছিল। খোলে দা রব নামের এই খন্ড ২০১১ সালের ২০ নভেম্বরে প্রদর্শিত হয়। কাজিরাঙ্গা রাষ্ট্রীয় উদ্যানে পাপন ও রব্বি শেরগীল মিলিত ভাবে পান্জাবী, বাংলা ও অসমীয়া মিশ্রিত একটি গান রচনা করেছিলেন। এই গানটিতে পাপন বড়ো, রাভা ও সত্রীয় সঙ্গীতের উপাদান ব্যবহার করেছিলেন ।

তথ্যসূত্রসম্পাদনা

  1. অনলাইন শিবসাগ্র
  2. "papon.co.in"। ৫ মার্চ ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  3. Dum Maaro Dum music offers variety- হিন্দুস্তান টাইমস
  4. Singer of the week: Assamese singer Angaraag Mahanta- ইণ্ডিয়া টুডে
  5. "EIC the band biography"। ৭ নভেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  6. Crossings Festival - Vaishali & Angaraag[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  7. mtvindia.com[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগসম্পাদনা